গোষ্ঠীর মহিলাদের বিক্ষোভ, ভগবানগোলার স্কুলে বন্ধ মিড-ডে-মিল 

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভগবানগোলাঃ মিড-ডে-মিল রান্না করা নিয়ে গোষ্ঠীর মহিলাদের বিক্ষোভে উত্তাল ভগবানগোলা ২ নম্বর ব্লকের ১৪ নম্বর কাজীপাড়া মদনপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর। গোষ্ঠীর মহিলারা মিডডেমিল রান্নার ঘরে তালা ভেঙে রান্না করার উনুন ভেঙে ফেলে এবং কাজের দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। জানা গিয়েছে, কাজীপাড়া মদনপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দীর্ঘিদন ধরে মিডডেমিল রান্না করে আসছেন ৯টি গোষ্ঠীর মহিলারা।

তবে সম্প্রতি এই রান্নার দায়িত্ব দেওয়া হয় চারজনকে। এতেই কাজ হারানোর ভয়ে খোভে ফেটে পড়েন অন্যান্য গোষ্ঠীর সদস্যরা। সোমবার স্কুলে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। স্কুলে মিডডেমিলের ঘরে ভাঙচুরও চালায় বলে অভিযোগ।

কাজীপাড়া মদনপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিডডেমিলের সঙ্গে কর্মরত এক সদস্য নবিজা বিবি জানান, ‘আমি এই স্কুলে দীর্ঘ কুড়ি বছর রান্না করেছি। হঠাত আজ এসে আমাদের বলছে আমরা আর রান্না করতে পারব না। এখন থেকে ওরাই রান্না করবে’। আরেক সদস্য সীমা বিবি জানান, “আমারা যারা আজ এতদিন ধরে রান্না করছি। তাঁদের একটি ব্যবস্থা করা হোক। এই দাবি তুলছি আমরা।” এর জেরে এদিন স্কুল চত্বরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। যদিও স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দাবি বিভিন্ন গোষ্ঠির মহিলাদের মধ্যে লটারির মাধ্যমে চারজনকে নিয়োগ করা হলেও সকলকে নিয়েই মিডডে মিল রান্নার কাজ হয়। এছাড়াও স্কুলের প্রধান শিক্ষক দাবি করেছেন, পুরনো বিডিও’র দ্বারা চালু করা নিয়ম ‘সিসিএইচ’ অর্থাৎ যিনি রান্নার কাজেও সাহায্য করবেন এবং অন্যান্য কাজেও থাকবেন।

এই বিষয়ে কাজীপাড়া মদনপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মহম্মদ মাইমেনুল হক জানান, ” স্কুলের রান্নার ক্ষেত্রে নিয়োগ করেন বিডিও। আমরা লটারির মাধ্যমে রান্নার কর্মীদের নিয়োগ করি। সবটাই বিডিও স্যারের আদেশে হয়”। এদিন বিক্ষোভের জেরে স্কুলে বন্ধ থাকে মিড-ডে-মিল পরিষেবা।