রেজিনগরে এক রাস্তার দুই শিলান্যাস অধীর ও রবিউলের

নিজস্ব সংবাদদাতা, রেজিনগরঃ বেলডাঙা দু নম্বর ব্লকের দাদপুর পঞ্চায়েতে মাত্র ৬৩৫ মিটার রাস্তা তৈরি করবে কে? তাই নিয়ে সোমবার সকাল থেকে উত্তেজনা ছড়ায় মরাদিঘি অঞ্চলে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছুদিন আগে দাদপুর পঞ্চায়েতের মরাদিঘি থেকে ওমরপুর পর্যন্ত একটি রাস্তার তৈরির শিলান্যাস করেন বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। সেই রাস্তা তৈরি হবে সাংসদ তহবিলের চার লক্ষ টাকা খরচ করে। সে কথাও ঘোষণা করা হয়েছিল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে।

কিন্তু রবিবার ওই একই রাস্তা পথশ্রী প্রকল্পে তৈরি হবে বলে শিলান্যাস করেন রেজিনগরের বিধায়ক রবিউল আলম চৌধুরী। তিনি সাংসদকে অন্য রাস্তা তৈরির প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, ” মরাদিঘি ও অমরপুরের বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে পথশ্রী প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তার অনুমোদন করাই। দু-চার দিনের মধ্যেই এই কাজ শুরু হয়ে যাবে।” এর জন্য তাঁর সঙ্গে জেলা প্রশাসনের শীর্ষ স্তরেও কথা হয়েছে বলেও দাবি করেন বিধায়ক। তিনি বলেন, “সাংসদকে বলতে চাই আপনার তহবিল থেকে গ্রামের অন্য একটি রাস্তা তৈরি করে দিন। তাহলে গ্রামের উন্নয়ন হবে।”

সোমবার ওই রাস্তার শিলান্যাস করতে গেলে অধীরকে গ্রামবাসীরা সেই প্রস্তাব রাখেন। তার প্রেক্ষিতে অধীর তাঁদের বলেন, ” আমি সরকারের অনুমতিতে এই কাজ করছি। সরকার আমার কাজটা বাতিল করে দিক।” যদিও শেষ পর্যন্ত ফিতে কেটে ওই রাস্তার ফের শিলান্যাস করেন অধীরও। তিনি অবশ্য বলেন, ” বিধায়কের সঙ্গে আমি তো যুদ্ধে যেতে পারি না। তাঁর প্রতিনিধি ও আমাদের প্রতিনিধি একসঙ্গে বসে কে কোন কাজটা করবে তা ঠিক করে নিলেই হল।”