তৃণমূল নেতাদের জেলে ঢোকানোর সুকান্ত দাবির দু’দিন পর পাল্টা তোপ তৃণমূলের

নিজস্ব সংবাদদাতা, সুতিঃ তৃণমূলের তিন নেতা ইমানি বিশ্বাস, আখরুজ্জামান ও জাকির হোসেনকে সুতির সাদিকপুরের সভা থেকে  জেলে ঢোকানোর  হুমকি দিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তাঁর কথার জবাব দিতে ৪৮ ঘন্টা সময় নিল তৃণমূল। কেন্দ্রের বঞ্চনার প্রতিবাদে সভা থেকে বিজেপিকে পাল্টা আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেতারা।  

ইমানি বিশ্বাস বলেন, “সুকান্ত মজুমদার মহাশয় চোরের মায়ের বড় গলা। আপনাদের মানুষ চিনে নিয়েছে। আপনার ক্ষমতা থাকলে জঙ্গিপুরে দাঁড়ান। আপনার জমানত জব্দ করে দেব।” এরপরেই তিনি বলেন, “ আপনারা ভয় দেখাচ্ছেন। বাংলার মানুষ মৃত্যুর জন্য ভয় পায় না। জেলের জন্য ভয় পায় না।“ আখরুজ্জামান বলেন, “সুকান্তবাবু এই মঞ্চ থেকে জিজ্ঞাসা করতে চাই তোমরা ধর্মের নামে হিন্দুত্বের নামে লড়াই করতে চাও কিন্তু ২০১৪ সাল থেকে তোমার নরেন্দ্রমোদি সরকার হিন্দু ভাইদের জন্য কী করেছে?”

তৃণমূলের মুখপাত্র অরূপ চক্রবর্তী এদিন সুকান্তকে কটাক্ষ করে বলেন “একটি অপদার্থ গাঁয়ে মানে না আপনি মোড়ল। নিজের বালুরঘাটে পাত্তা পায় না এসেছে জঙ্গিপুরের মাটি বিষাক্ত করতে।” পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূলের ছাত্র নেতা সুদীপ রাহা বলেন, “ইডি সিবিআই বিজেপির পোষা কুকুর হয়ে গিয়েছে।” ওই একই মঞ্চ থেকে বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরীকে বিজেপি ‘এজেন্ট’ বলে তাঁকে সাংসদ পদ থেকে উৎখাত করার ডাক দেন সুদীপ। এদিন অবশ্য ওই মঞ্চে জঙ্গিপুরের সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যান জাকির হোসেনকে দেখা যায়নি।