দলের নেতা খুনে মাথাব্যাথা নেই তৃণমূলের, দাবি অধীর চৌধুরীর, পাল্টা তৃণমূল

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ দলের কর্মী খুন হলেও সরকারি দলের মাথাব্যাথা নেই। এমনকি তার প্রতিবাদে কোনও মিছিলও করেনি তৃণমূল। প্রশাসন সব জেনেও নীরব। জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সোমবার বহরমপুরে জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই দাবি করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। একই সঙ্গে লোকসভা নির্বাচনে রাজ্য পুলিশের থেকে কেন্দ্র পুলিশেই ফের ভরসা খুঁজলেন তিনি। দিনের আলোয় জনসমক্ষে রবিবার খুন হয়ে যান তৃণমূল কর্মী সত্যেন চৌধুরী। অথচ ২৪ ঘন্টা কেটে গেল কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এদিন অধীর বলেন, “ এই খুনের পেছনে কংগ্রেস ষড়যন্ত্রকারি। কম সে কম এই কথা বলেও তো মিছিল করতে পারত তৃণমূল। এটুকু বলেও খুনিকে তো ধর। নিজের দলের নেতা খুন হয়ে যাওয়ায় সেটুকু করেও প্রতিবাদ করে নি ওরা। আসলে সরকারি দলের তা নিয়ে কোনও মাথাব্যাথা নেই। প্রশাসন সব জানে।”  তাঁর দাবির পাল্টা দাবি করে তৃণমূলের বহরমপুর-মুর্শিদাবাদ সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অপূর্ব সরকার বলেন, “ তৃণমূল কী করবে তা নিয়ে অধীরবাবুর না ভাবলেও চলবে। প্রশাসনের প্রতি আমাদের ভরসা আছে। প্রশাসন ঠিক অপরাধীদের খুঁজে বার করবে। তবে কারা খুন করেছে তা যদি অধীর বাবু জানেন তাহলে অপরাধীদের নাম সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দিন।”জেলা তথা রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অধীর লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্বাচন করানোর পক্ষে সওয়াল করেন। তিনি বলেন, “ এখান আইন শৃঙ্খলার উপর নির্ভর করে নির্বাচন হবে বলে আমি কোনওদিন বিশ্বাস করি নি আজও করি না। ” অপূর্ব বলেন, “ লোকসভা নির্বাচন কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়েই করা হয়। উনি যদি বিজেপির কাউকে দিয়ে সেই নির্বাচন করাতে চান সেটা আলাদা কথা।”