সুতিতে গুলিকান্ডে গ্রেফতার তিন। উঠে আসছে নয়া মোড়।

মধ্যবঙ্গ ওয়েব ডেস্ক, জঙ্গিপুরঃ সুতিতে শ্যুটআউটের ঘটনায় গ্রেফতার তিন। সোমবার সন্ধ্যায় সুতি থানার অজগরপাড়ায় ঘটে শ্যুট আউটের ঘটনা ওই দিনই এফআইআর দায়ের করা হয়। তারপরে এই ঘটনায় গ্রেফতার তিন অভিযুক্তদের নিয়ে বুধবার বিকেলে জঙ্গিপুর এসপি অফিসে সাংবাদিক বৈঠক করেন জঙ্গিপুর পুলিশ সুপার ভিজি সতীশ।

পুলিশ সুপার সূত্রের খবর, ফেরার ওই তিন অভিযুক্তকে ১৪ তারিখ রাতেই আটক করে পুলিশ। সুব্রত ঘোষ, সুভাষ ঘোষ ও ভজন হালদার নামে তিনজন অভিযুক্তকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আটক করে পুলিশ। এদিন আরও জানা যায় আরও তথ্য, স্থানীয় ইটভাটার মালিকানা নিয়ে বচসার জেরে এই ঘটনা ঘটে বলে দাবী পুলিশের। মৃতের পরিবারকে পুলিশি নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করেছে পুলিশ।

এই শ্যুটআউটের জেরে মৃত্যু হয়েছে অজগরপাড়ার বাসিন্দা নিশিত দাসের। স্থানীয় এলাকায় তাঁর মালিকানাতে একটি ইটভাটা ছিল। সেই ইটভাটার মালিকানা নিয়ে বচসার জেরেই এই খুন বলে দাবী মৃতের পরবারের। শ্যুটআউটের খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে ওই ব্যক্তিকে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ঘটনার তদন্তে জঙ্গিপুর হাসপাতালে আসেন জঙ্গিপুর পুলিশ সুপার ভিজি সতীশ এসে ঘটনার দ্রুত তদন্তের আশ্বাস দেন। এবার এই ঘটনায় ধৃত তিন অভিযুক্তকে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করলেন জঙ্গিপুর পুলিশ সুপার।

নিশিত দাস খুনের মামলায় তাঁর পরিবার তরফে পুলিশের কাছে রুজু হয়েছে এফআইআর। ১৪ই আগস্ট সোমবার সন্ধ্যায় সুতি থানার অজগরপাড়ায় ঘটে শ্যুট আউটের ঘটনা। গুলিতে মৃত্যু হয়েছে অজরগপাড়ার বাসিন্দা নিশিত দাসের। সেই রাতেই দায়ের হয়েছে অভিযোগ। অভিযোগ, ইটভাটার মালিকানা নিয়ে বিবাদ থেকেই খুন। তার ভিত্তিতেই দায়ের হয়েছে এফআইআরও। সাথে পরিবারের আরও অভিযোগ, ইট ভাটা মালিককে হুমকি দিয়েছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা। প্রশ্ন উঠছে, কীসের জেরে এই খুন?