ঘূর্ণিঝড়ের বেগ বাংলাদেশের দিকে, বৃষ্টির সম্ভবনা জেলায়, সতর্ক থাকতে হবে চাষিদের

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ নিম্নচাপের শক্তি বৃদ্ধি দেখে আবহবিদরা বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা করেছিলেন। সেই আশঙ্কাই সত্যি করল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। আবহাওয়া দপ্তরের থেকে জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরের ওপর যে নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়েছে, তার শক্তি আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ শুক্রবার সেটি ঘূর্ণিঝড়ের চেহারা নেবে।

তবে, এই ঝড় থেকে আমাদের রাজ্যের বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা নেই। ঘূর্ণিঝড়টি আজ, শুক্রবার গভীর রাতে বা আগামীকাল শনিবার সকালে বাংলাদেশের মাংলা এবং খেপুপাড়ার মাঝামাঝি কোনও জায়গা দিয়ে স্থলভূমিতে প্রবেশ করবে। তবে এর প্রভাব আজ, শুক্রবার বৃষ্টির আশঙ্কা আছে।

এ দিন বিকেলে বঙ্গোপসাগরে অতি গভীর নিম্নচাপটি দিঘা থেকে প্রায় ৪০০ কিলোমিটার দক্ষিণে ছিল। শক্তি বৃদ্ধি করে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হলে তার নাম হবে ‘মিধিলি’। মলদ্বীপ এই নামটি দিয়েছে। বাংলাদেশে যখন এই ঘূর্ণিঝড়টি যাবে সেই সময় গতি থাকতে পারে ৬০-৭০ কিলোমিটার। মুর্শিদাবাদে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। ইতিমধ্যেই জেলা জুড়ে মেঘের আনাগোনা চোখে পরেছে। এইমত অবস্থায় বর্ষার পরবর্তী সময়ে বৃষ্টির জেরে ফসল নষ্টের আশঙ্কা থাকছে। বিশেষ ভাবে পাকা ধান না কেতে নিলে ক্ষতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন কৃষি-আবহবিদরা। এই বৃষ্টির মধ্যে কীটনাশক ব্যবহার করতে নিষেধ করছেন কৃষিবিদেরা।