ভরতপুরে সংযুক্ত কিষানসভার দুদিনের জেলা সম্মেলনে উঠল রাজ্যের রেশন দুর্নীতি প্রসঙ্গ

নিজস্ব সংবাদদাতা,ভরতপুরঃ ফসলের ন্যায্য দাম, স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করা সহ বিদ্যুতের স্মার্ট মিটারিং বন্ধ করা সহ একগুচ্ছ দাবি সমূহকে সামনে রেখে সংযুক্ত কিষানসভার দুদিনের জেলা সম্মেলন শুরু হয়েছে ভরতপুরে। সেখানে আলোচিত হল রাজ্যের রেশন কেলেঙ্কারিও। সংগঠনের রাজ্য সম্মেলন হবে চলতি বছর ডিসেম্বরে। সেই উদ্দেশ্যেই জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে জেলা সম্মেলন। শনিবার মুর্শিদাবাদেও শুরু হল ৩০তম মুর্শিদাবাদ জেলা সম্মেলন। কাল রবিবারেও সম্মেলন চলবে।  প্রায় ২৬০জন প্রতিনিধি ভরতপুরে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে অংশগ্রহন করেছেন। রাজ্য ও দেশের কৃষি নীতি, ‘কৃষকদের উপর অত্যাচার’, বাতিল হওয়া আইনের বদলে নতুন আইন চালু দাবিতেই হবে রাজ্য সম্মেলন।  এদিনের জেলা সম্মেলনে হাজির ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও সংযুক্ত কিষানসভার রাজ্য সম্পাদক সুভাষ নস্কর, এছাড়াও আর .এস .পি.-র রাজ্য সম্পাদক তপন হোড়। এছাড়া কৃষকসভার সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আর এস পি মুর্শিদাবাদ জেলা সম্পাদক অঞ্জনাভ দত্ত, দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নওফেল মহা: সফিউল্লাহ সহ অন্যান্য দলীয় কর্মীরা। সুভাষ বলেন, “সরকার নির্ধারিত দামের থেকে অনেক কম দামে কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনে নিচ্ছেন ফড়েরা। কৃষক ফসলের দাম পাচ্ছেন না। রাজ্য সরকার প্রত্যেকটি পঞ্চায়েতে ধান কেনার জন্য একটি করে শিবির খুলেছে। বলা হয়েছে ৯০ কুইন্টয়াল ধান বিক্রি করতে বলা হয়েছে। দালালরা তা বিক্রি করছেন কৃষক পাচ্ছেন না। ২ হাজার ২৪০ টাকার বদলে ১৭৩০ টাকায় প্রতি কুইন্টাল ধান বিক্রি হচ্ছে।” তাঁর আরও অভিযোগ, “প্রকৃত কৃষক ভাতা পাচ্ছেন না। যিনি নিজের জমি লিজ দিয়ে অন্যকে দিয়ে চাষ করাচ্ছেন তিনি সেই ভাতা পাচ্ছেন।” এসবের বিরুদ্ধেই তাঁদের আন্দোলন বলে জানান তিনি। তপন বলেন, রেশন কেলেঙ্কারি নিয়েও জেলায় জেলায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রতিবাদ জানানো হবে।