বহরমপুরের অভিজাত এলাকায় ডেঙ্গি আক্রান্তের মৃত্যু!

ঋত্বিক দেবনাথ, বহরমপুরঃ আবার মুর্শিদাবাদে ডেঙ্গি আক্রান্তের মৃত্যু ঘটনা। বহরমপুরে বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হল এক মহিলার। গত কয়েকদিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। আগের সপ্তাহে মঙ্গলবার বাড়ি ফেরেন কলকাতা থেকে। তারপর বুধবার থেকে আসে প্রচণ্ড জ্বর। ক্রমে ক্রমে খারাপ হতে থাকে শরীর। প্রাথমিকভাবে বাড়িতেই চিকিৎসা চলতে থাকে। কিন্তু ক্রমশ অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। এবং তারপর মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রক্তপরীক্ষা করালে ধরা পরে ডেঙ্গি।

তারপরেও বাড়িতেই চলতে থাকে সেই গৃহবধূর চিকিৎসা। অবস্থা শোচনীয় হওয়ার কারণে পরিবারের তরফ থেকে ভর্তি করানো হয় বহরমপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। কিন্তু তারপরেও অবস্থার অবনতি হতে থাকে ক্রমশ। হাসপাতাল সূত্রে খবর, অবশেষে বুধবার সকাল আটটা নাগাদ মৃত্যু হয় বছর ৪৩ এর গৃহবধূ অন্তরা চ্যাটার্জীর।

মৃতার স্বামী সাগর চ্যাটার্জী জানান, মঙ্গলবার কলকাতা থেকে আসার পর থেকেই অসুস্থতা অনুভব করছিল। এবং বুধবার থেকে প্রচণ্ড জ্বর। প্রথমে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রক্তপরীক্ষা করানো হয়। সেখানেই ধরা পরে ডেঙ্গির। কিন্তু অবস্থা একটু ভালো থাকায় বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল ডাক্তারের পরামর্শে। কিন্তু অবস্থার অবনতি হতে থাকে ধীরে ধীরে। এবং রবিবার পরিস্থিতি সংকটজনক হওয়ায়। সোমবার বহরমপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। কিন্তু শেষমেশ আর বাঁচানো গেল না তাঁকে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, মৃতার দুই বাচ্চা রয়েছে। একজন ক্লাস ফোর এবং আরেকজন ক্লাস সেভেন। এবং এই দুটি শিশুর ভবিষ্যৎ কী হতে চলেছে সেই নিয়ে খুব সংশয় মৃতার স্বামী। কবে হুঁশ ফিরবে প্রশাসনের। কবেই বা আরও নজরদারি দেওয়া হবে চারিদিকে। সেই নিয়ে সর্বদা ধোঁয়াশা থেকেই যায়। মুর্শিদাবাদ জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সন্দীপ সান্যাল জানান, মুর্শিদাবাদে ডেঙ্গিতে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। এবং যাতে আরও না ছড়ায় তার সমস্ত রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে মুর্শিদাবাদ স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে।