গাফিলতি ঢাকতে সুতিতে পথে প্রশাসন, পথশ্রীর বকেয়া কাজ হবে অন্য খাতের টাকায়

নিজস্ব সংবাদদাতা, জঙ্গিপুরঃ পথশ্রী প্রকল্পের মাত্র এক কিলোমিটার রাস্তা তৈরি নিয়েই যত হইচই। চলতি বছর মার্চে কাজ শুরুর পর হঠাৎই থমকে যায় কাজ। পঞ্চায়ের নির্বাচন শেষ হয়ে নতুন পঞ্চায়েত বোর্ডের কাজ শুরু হলেও এখনও সেই কাজ শুরু করা যায়নি। যা নিয়ে সুতির বহুতালির সেই রাস্তার কাজ ফের শুরু করার দাবি নিয়ে রাস্তায় নেমে বুধবার বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা। তাদের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে এসে প্রশাসনিক আধিকারিকরা দেখলেন গলদ হয়েছে প্রশাসনের তরফেই। স্থানীয় ও প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, পথশ্রী প্রকল্পের সিডিউলে বহুতালির সাঁকোপাড়া থেকে পীড়তলা পর্যন্ত এক কিলোমিটার রাস্তার কাজ শুরু হয়েছিল লোকেসন পাড়া থেকে। তার জেরে প্রস্তাবিত রাস্তা কয়েকশো মিটার বেড়ে যায়। প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ৩৩৭ মিটার কাজ এখনও বাকি আছে। আর সেই বাকি কাজ শেষ করার দাবিতেই রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন গ্রামবাসীরা।

সুতির বহুতলির রাস্তা পরিদর্শন করছেন প্রশাসনের কর্তারা। নিজস্ব চিত্র

সেই দাবি খতিয়ে দেখতে শনিবার সেই কাজ পরিদর্শনে আসেন জঙ্গিপুরের এসডিও একাম জে সিং, সুতি ১ এর বিডিও অরূপ সাহা সহ প্রশাসনিক আধিকারিকেরা। গ্রামবাসীদের সামনেই এদিন রাস্তা খুঁড়ে, ফিতে দিয়ে মাপজোখ করা হয়। তারপর বিডিও বলেন, “পথশ্রী প্রকল্পের এক কিলোমিটার রাস্তার কাজ প্রায় শেষ হয়ে গিয়েছে। কাজের গুণগত মানও ঠিক আছে।” যে অংশটা নিয়ে অভিযোগ সেই রাস্তার উল্লেখ ছিল না প্রকল্পে।

বিডিও বলেন, ” গ্রামবাসীরা সমীক্ষার সময় গ্রামবাসীদের অনুরোধে লোকেশন পাড়া থেকে পীরতলার সাঁকোপাড়ার মাঝামাঝি রাস্তা পর্যন্ত এই রাস্তা করার কথা হয়। কিন্তু জিও ট্যাগিংয়ে সে কথা লেখা ছিল না। সেটা ভুল হয়েছিল। তার জন্যই রাস্তার কাজ সম্পূর্ণ হয়নি।” ওই রাস্তা ১৫ তম অর্থ কমিশনের টাকায় করে দেওয়া হবে বলে এদিন গ্রামবাসীদের আশ্বাস দেন বিডিও। গ্রামবাসী শ্যামল রবিদাস, টুবলু দাসরা অবশ্য বলেন, “পাঁচ বছর ধরে এই রাস্তা তৈরি হয়নি। প্রশাসন প্রতিশ্রুতি না রাখলে আরও বড়সড় আন্দোলনে নামব। সেইরকম হলে রাস্তা কেটে দেব।”