দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ! পড়ুয়াদের স্কুলের গন্ডিতে ফেরাতে মাইকিং স্কুল কর্তৃপক্ষের

মধ্যবঙ্গ ওয়েব ডেস্কঃ প্রথমে গরমের ছুটি, তারপরে আবার বর্ধিত ছুটি, তারপরে পঞ্চায়েত নির্বাচন। সবমিলিয়ে প্রায় ২ মাসের বেশি সময় পঠনপাঠন বন্ধ সরকারী স্কুলগুলির। পড়ুয়ারাও যে যার বাড়িতেই। তাই পড়ুয়াদের আবার স্কুলের গন্ডিতে ফেরাতে উদ্যোগ সামসেরগঞ্জের এক সরকারী স্কুলের।

বিদ্যালয়ে আছে বিশাল ভবন, তবে দেখা নেই ছাত্র-ছাত্রীদের। পাড়ায় পাড়ায় মাইকে প্রচারের পরে ধীরে ধীরে স্কুলে ফিরছে পড়ুয়ারা। যদিও স্কুলের ছাত্র ছাত্রীর উপস্থিতির সংখ্যা এখনও অর্ধেকেরও কম। মুর্শিদাবাদের ঝাড়খন্ড সীমান্ত লাগোয়া সামসেরগঞ্জের ভাসাই পাইকর হাইস্কুলে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা নেহাত কম নয়। খাতা কলমে সেই সংখ্যাটা ৯৩২৭ জন।

গত ১৩ জুলাই ভোটের পর স্কুল খুললেও দেখা নেই ছাত্র ছাত্রীদের। ছাত্র ছাত্রীদের উপস্থিতির হার চার ভাগের এক ভাগ। পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়ারা স্কুলে না আসায় চিন্তায় স্কুল কতৃপক্ষ। ছাত্র ছাত্রীদের স্কুলে ফেরাতে কয়েক দিন আগে মাইকে প্রচারও চালানো হয়েছে এলাকায়। এই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মহম্মদ তসিকুল ইসলামের দাবী লম্বা গরমের ছুটির পর পঞ্চায়েত ভোট, সব মিলিয়ে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল স্কুল। এই কারণেই অনেক ছাত্র-ছাত্রীই স্কুলে আসার আগ্রহ হারিয়েছে। তাই স্কুলের তরফে পড়ুয়া ফেরাতে মাইকিং করা হল সামসেরগঞ্জে। কবে আবার সব পড়ুয়ারা স্কুলে ফিরবে সেই দিকেই তাকিয়ে স্কুল কতৃপক্ষ।

মাইকিংয়ের ফলে গত কয়েক দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে পড়ুয়াদের উপস্থিতির হার। আগে যেখানে মোট পড়ুয়ার ৫ থেকে ৬% স্কুলে আসত, এখন তা বেড়ে ১৫ থেকে ২০% হয়েছে। আগামীদিনে বাকি পড়ুয়ারাও স্কুলে ফিরবে বলে আশাবাদী স্কুল কতৃপক্ষ।