ভোটের ফলের পরই ভোলবদল সামসেরগঞ্জে! কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে পা দিলেন পঞ্চায়েত সমিতির প্রার্থী পায়েল

নিজস্ব সংবাদদাতা, সামসেরগঞ্জঃ ভোটের ফল মিটতেই ভোলবদল সামসেরগঞ্জে। কংগ্রেস থেকে জিতেই তৃণমূলের পতাকা ধরলেন সামশেরগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য পায়েল দাস। বৃহস্পতিবার দুপুরে সামশেরগঞ্জের বিধায়কের হাত থেকে তৃণমূলের পতাকা হাতে দলে যোগ দিলেন নবনির্বাচিত পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য ও তার স্বামী। মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়ন দেখে এই যোগদান বলে দাবি যোগদানকারীর।

সামশেরগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির মোট আসন সংখ্যা ২৭ টি। তার মধ্যে তৃণমূল জিতেছে ২১ টি আসনে। কংগ্রেস জিতেছিল ৫ টি আসন। এবং বিজেপি ১ টি আসনে জয়লাভ করে। কিন্তু ঘটনায় নয়া মোড়। সামশেরগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির পদ সংরক্ষিত তফসিলি জাতির মহিলা পদের জন্যই। তৃণমূল থেকে জয়ী ২১ জনের মধ্যে একজনও তফসিলি জাতির মহিলা ছিলেন না। একমাত্র ১৪ নম্বর আসনে জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী পায়েল দাস তফসিলি জাতির মহিলা। এরই কারণে পঞ্চায়েত সমিতিতে সংখ্যা গরিষ্ট আসন পেলেও তৃণমূলের পক্ষ থেকে সভাপতি পদ নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরী হয়। অবশেষে সব জল্পনার অবসায় ঘটিয়ে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দিলেন কংগ্রেস থেকে জয়ী পঞ্চায়েত সমিতির প্রার্থী পায়েল দাস।

এদিন বিধায়ক আমিরুল ইসলামের বাড়িতে যান কংগ্রেস থেকে জয়ী প্রার্থী পায়েল। সেখানেই স্বামীর সাথে প্রার্থী নিজেও তৃণমূলের পতাকা হাতে তুলে নেন। তৃণমূল বিধায়কের দাবি, আগে ২১ জন জিতলেও এখন পায়েল দাস যোগদানের পর তা বেড়ে হল ২২ জন। শুধুই কী মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নে সামিল হতে নাকি সভাপতি হতেই দলত্যাগ তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে সামশেরগঞ্জে। ভোটের জেতার পরই এই ডিগবাজিতে সামশেরগঞ্জে রাজনৈতিক তরজাও অব্যাহত।