রেশন দুর্নীতির প্রতিবাদে বিডিওদের ডেপুটেশন দেবে কংগ্রেস

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ  রেজিনগরে রেশন সামগ্রী কম দেওয়ার অভিযোগে রেশন ডিলারকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা। তাঁদের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরেই রেশন ডিলার তাঁদের রেশন সামগ্রী কম দিচ্ছেন। এই ঘটনায়  চাঞ্চল্য ছড়াল রেজিনগরের গোপালপুর এলাকার কাশীপুর পঞ্চায়েতে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। যদিও রেশন সামগ্রী কম দেওয়ার অভিযোগ মানতে নারাজ ডিলার হাসিবুর রহমান। তবে গ্রামবাসীরা তাঁর কথার প্রতিবাদ করলে অভিযুক্ত ডিলার অভিযোগকারীকে বলেন ” কম থাকলে ফের তা পুষিয়ে নিয়ে যাস।” দিন পাঁচেক আগেও রেজিনগরের মরাদিঘি এলাকায় রেশন সামগ্রী কম দেওয়ার অভিযোগে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন গ্রামবাসীরা।

এইরকম ঘটনা মুর্শিদাবাদ সহ রাজ্যের একাধিক জায়গায় ঘটছে এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরের(ইডি) হাতে গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে জেলবন্দী প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ওরফে বালু।  তদন্তে নেমে বাংলা জুড়ে রেশন কেলেঙ্কারীর সাত কাহন সামনে এনেছে ইডি। তদন্ত যত এগিয়েছে পেঁয়াজের খোসা ছাড়ানোর মতো সামনে এসেছে খাদ্য দুর্নীতি। তারপর থেকেই রেশন ডিলারদের বিরুদ্ধে গতি পেয়েছে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ।আর সেই হাতিয়ারকে সঙ্গী করে পথে নেমেছে শাসক বিরোধী সব রাজনৈতিক দল। তবে সর রেশন ডিলারই যে হাসিবুরের মত তা মানতে চাননি বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন, ” রেশন দুর্নীতি কাণ্ডে ডিলার, ডিস্ট্রিবিউটরদের একাংশ যে জড়িত তা আমরা প্রথম থেকেই বলছি। তাই বলে সবাই জড়িত নয়। এমনও হয়েছে ভালো লোকের দুর্নীতি না করায় তার লাইসেন্স বাতিল হয়েছে।” মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেস কার্যালয়ে বসে ওইদিনই কংগ্রেস প্রদেশ সভাপতি দলের পক্ষ থেকে রেশন দুর্নীতির প্রতিবাদে বিডিওদের ডেপুটেশন দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, প্রথমে মুর্শিদাবাদ জেলার ২৬টি ব্লকের বিডিওদের ডেপুটেশন দেওয়া হবে। তারপর বাংলা জুড়ে এই কর্মসূচী পালিত হবে।