হরিহরপাড়া হত্যাকান্ডে গ্রেফতার গাড়ির চালক সহ ১ , CCTv ফুটেজ দেখে তদন্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, হরিহরপাড়াঃ অবশেষে  হরিহরপাড়া হত্যাকান্ডে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ। বৃহস্পতিবার হরিহরপাড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সামনে গ্রামের বাসিন্দা মিনারুল ইসলামের মরদেহ রেখে চম্পট দিয়েছিল কোনও অজ্ঞাত ব্যক্তি। এবার সেই ঘটনায় ২ জনকে  গ্রেফতার করল হরিহরপাড়া থানার পুলিশ   । পুলিশ সূত্রে জানা যায় ধৃতদের নাম গাফফার খান ও সরফরাজ খান তাদের দুজনের বাড়ি চোয়া পাঠান পাড়া এলাকায়। যে মারুতি ভ্যানে করে মৃতদেহ এনে হাসপাতালে রাখা হয়েছিল, গাফফার খান সেই গাড়ির চালক। পুলিশ সূত্রে খবর, যে গাড়িতে মৃতদেহ নামানো হয়েছিল,  সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে সেই গাড়ির ছবি। সেই সূত্র ধরেই গাফফার খানকে গ্রেফতার করা হয়।

শুক্রবার ময়নাতদন্তের পর হরিহরপাড়া থানার সামনের রাস্তায় মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ দেখায় মৃতের পরিবার। তাঁদের দাবি খুনিদের গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত চলবে বিক্ষোভ।  পুলিশের পক্ষ খুনিদের গ্রেফতার করার    প্রতিশ্রুতি দিলে বিক্ষোভ ওঠে।

ঘটনার তদন্ত নেমে শুক্রবার হরিহরপাড়া থানার পুলিশ দুজনকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের শনিবার ১০ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানিয়ে জেলা আদালতে পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার হরিহরপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতের স্ত্রী সাহানাজ  বানু বিবি।  তবে এফআইআর-এ নাম নেই ধৃতদের।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি মিনারুলের সঙ্গে ওই পাড়ারই একটি পরিবারের বিরোধ ছিল। তারাই মিনারুলকে ডেকে নিয়ে যায় বুধবার রাতে। পরের দিন মিনারুলের দেহ উদ্ধার হয় হাসপাতাল চত্বর থেকে। তাই মিনারুলের পরিবার প্রতিবেশীই খুন করেছে বলে দাবি করছেন। তাঁরা বলেন, “ওরা আগেও হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। তার পর থেকেই দীর্ঘদিন ধরে ঘর ছাড়া মিনারুলের পরিবার। মিনারুল পেশায় ছিলেন গাড়ির চালক ফলে বাইরে বাইরে বেশি দিন কাটাতেন। পুলিশেরও প্রাথমিক অনুমান, খুন করা হয়েছে মিনারুলকে।