সর্ষেতেই ভুত ! বহরমপুরে ছিনতাইয়ে গ্রেফতার ব্যাঙ্কেরই কর্মী সহ ৩।

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্ক, ০২ নভেম্বরঃ   এ যেন সর্ষের মধ্যেই ভুত। ব্যাঙ্কের সামনে চায়ের দোকানে বসেই ছিনতাই’এর ছক। সেই ছকের অন্যতম ইনফর্মার আবার ব্যাঙ্কেরই এক চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী। গ্রাহকের টাকা ব্যাঙ্কে পৌঁছানোর আগেই ছিনতাই’এর পরিকল্পনা। আর সেই পরিকল্পনার অনুযায়ীই ৩০শে অক্টোবর বহরমপুরের ঘুর্নি মোড়ে করা হয় ছিনতাই। বাসে করে ব্যাঙ্কে টাকা জমা দিতে  আসছিলেন এক ব্যবসায়ী । সাথে ছিল ১৮ লক্ষ টাকা। ছিনতাইকারীদের কাছে আগেই ছিল সেই খবর। ওই ব্যবসায়ী বাসস্ট্যান্ডে তার উপর চড়াও হয় ছিনতাইকারীরা। কেড়ে নেওয়া হয় সাথে থাকা টাকা।

বাধা দিলে দু’রাউণ্ড গুলিও চালায় দুষ্কৃতীরা। সেই ঘটনাতেই এবার  গ্রেফতার ব্যাঙ্কেরই চতুর্থ শ্রেণীর  কর্মচারী সহ ৩ জন । উদ্ধার হয়েছে  ৬ লক্ষ টাকা।  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বহরমপুর থানায় সাংবাদিক বৈঠকে অ্যাডিশনাল এসপি হেডকোয়ার্টার সুবিমল পাল জানান,  সশস্ত্র  দুষ্কৃতিরা  এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ১৮ লক্ষ টাকা ছিনতাই করেছিল । তদন্তে নেমে পুলিশ ইতিমধ্যেই তিনজনকে গ্রেফতার  করেছে। ঘটনায় গ্রেফতার  করেছে করা হয়েছে ঘুর্নি ভাটা পাড়ার বাসিন্দা হান্নান সেখ, লালবাগের মানিকনগরের বাসিন্দা হাসিবুল সেখ ও  উস্তিয়া এলাকার বাসিন্দা কয়েসউদ্দিন মণ্ডল। এই কয়েসউদ্দিন মণ্ডল আবার ব্যাঙ্কের চতুর্থ শ্রেনীর কর্মী।

পুলিশ আধিকারিক আরও জানান এই ছিনতাই এর ঘটনায় মাস্টার মাইন্ড হান্নান শেখের ব্যাঙ্কের সামনে চায়ের দোকান রয়েছে। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৩ জন গ্রেপ্তার হলেও উদ্ধার হয়েছে ৬ লক্ষ টাকা। ধৃতদের মধ্যে ২ জনের আগে অপরাধের রেকর্ড রয়েছে।  অ্যাডিশনাল এসপি হেডকোয়ার্টার সুবিমল পাল জানান,  বাকি টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এই চক্রে জড়িতদের চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদেরকেও গ্রেফতার করা হবে বলে জানান অ্যাডিশনাল এসপি হেডকোয়ার্টার সুবিমল পাল।