“পুলিশে মেরে দিল”, লকআপে যুবকের মৃত্যু ! নবগ্রামে থানার বাইরে বিক্ষোভ, টিয়ার গ্যাস

নিজস্ব সংবাদদাতা, নবগ্রামঃ  খোদ পুলিশের লক আপের মধ্যে এক যুবককে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল মুর্শিদাবাদের নবগ্রামে। মৃত যুবকের নাম গোবিন্দ ঘোষ। মৃতের পরিবারের দাবি, নবগ্রামের সিঙ্গার গ্রামে চুরির অভিযোগে নবগ্রাম থানায় তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল ওই যুবককে। সেখানেই পিটিয়ে খুন করা হয় বলে অভিযোগ। পুলিশের বিরুদ্ধেই অভিযোগ রয়েছে পরিবারের। শুক্রবার রাতে এই ঘটনার প্রতিবাদে নবগ্রাম থানার বাইরে বিক্ষোভ দেখান গ্রামের মানুষ। হয় ইটবৃষ্টিও। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ার গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিস। ঘটনায় উত্তেজিনা রয়েছে এলাকায়। জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন আগে চুরি হয় সিঙ্গার গ্রামের এক ব্যক্তির বাড়িতে। মৃতের পরিবারের দাবি, ওই চুরির ঘটনায় তিন দিন ধরে নবগ্রাম থানায় আটকে রাখা হয়েছিল ওই যুবককে। শুক্রবার সন্ধ্যায় থানাতেই পিটিয়ে মারা হয় বলে অভিযোগ। লকআপের মধ্যে যুবকের মৃত্যুতে সরাসরি নবগ্রাম থানার ওসি’র বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে মৃতের পরিবারের সদস্যরা। আজ ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে হবে দেহের ময়নাতদন্ত । মৃতের জেঠু সুকুমার ঘোষ  বলেন, ” এর আগে এই ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছিল। বুধবার রাতে আটক করা হয় গোবিন্দকে। চুরির দিন কাজে গিয়েছিল ওই যুবক, চুরির সাথে যুক্তই নয়। আজ পুলিশে মেরে দিল সন্ধ্যার সময়” । মৃতের পরিবারের অভিযোগ, বুধবার সন্ধ্যা থেকেই থানায় আটকে রাখা হয়েছিল ওই নবগ্রামের সিঙ্গারের বাসিন্দা গোবিন্দ ঘোষকে । মৃতের বাবার ষষ্ঠী ঘোষের দাবি, যুবককে লকআপের ভেতরেই মারধর করে পুলিশ। সরাসরি নবগ্রাম থানার ওসি’র বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে পরিবার। পুলিশের গাড়িতেই নিয়ে আসা হয়েছিল নবগ্রাম ব্লক হাসপাতালে।