কাশিমবাজারে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল মায়ের, গুরুতর আহত মেয়ে।

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ রাত পোহালেই কালী পুজো। তার আগেরদিন অর্থাৎ শনিবার ভূতচতুর্দশি এবং আজকের দিনের হিন্দু মতে নিয়ম ১৪ শাক খেয়ে চোদ্দটা প্রদীপ দিতে হয় পূর্ব পুরুষদের জন্যে। ফলে আজকের দিনে ১৪ রকমের শাকের চাহিদা বাজারে প্রচুর। এবং সেই চাহিদা মেটাতেই সাধারণ গরিব ঘরের মানুষেরা দু’পয়সা লাভের জন্যে বিভিন্ন জায়গাতে গিয়ে এই সমস্ত শাক তুলতে জান তাঁরা। এমনই কিছু ঘটেছে এই বছর। বহরমপুরের বাসিন্দা তিলকা রায় (৪৫) ও তাঁর মেয়ে লক্ষ্মী রায় দুজন মিলে কাশিমবাজার রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় শাক তুলতে ব্যস্ত ছিলেন। এমন সময় ঘটে বিপত্তি। বহরমপুরের কাশিমবাজারে ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হল এক মহিলার। আহত হয়েছেন তাঁর মেয়েও রেল লাইনের ধারে থাকতে শাক তুলতে গিয়ে ঘটে দুর্ঘটনা।

জানা গিয়েছে শনিবার সকালে কাশিমবাজার স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় রেল লাইনের ধারে শাক তুলতে যান তিলকা রায় ও তাঁর মেয়ে লক্ষ্মী রায়, তাঁদের সাথে ছিল আরও একজন। লাইন দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দুই লাইনে ট্রেন চলে আসে। ট্রেনের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মায়ের। গুরুতর আহত অবস্থায় মেয়ে লক্ষ্মী রায়কে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মায়ের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে মেয়ের ওপর। কখনও ভাবতেই পারেননি এমন কিছু ঘটে যেতে পারে। চোখের সামনে মাকে হারিয়ে ফেলবেন। ওনাদের সাথে যিনি ছিলেন তাঁর তেমন কোনরকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেই জানা যাচ্ছে হাসপাতাল সূত্রে।