ঐন্দ্রিলা বেঁচে থাকুক গাছেদের মধ্যদিয়ে, বহরমপুরে এই বার্তার সাথে গাছ লাগালেন মিষ্টির মা

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ ২০শে নভেম্বর ২০২২, মারণব্যাধি ক্যান্সার অকালেই প্রাণ কেড়ে নেয় ঐন্দ্রিলা শর্মার। অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। যদিও বহরমপুরের মানুষের সে মিষ্টি হিসেবেই পরিচিত । তারই প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে একটি পরিবেশ প্রেমী সংস্থার সহযোগিতায় ঐন্দ্রিলার পরিবারের সদস্যরা বৃক্ষরোপণে হাত লাগালেন। সোমবার ঐন্দ্রিলার মা শিখা শর্মার পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল চত্বরে বেশ কিছু বৃক্ষরোপণ করা হয়। গাছেদের মধ্যে বেঁচে থাকুক ঐন্দ্রিলা, এমনটাই চাইছে তাঁর পরিবার।

জীবন যুদ্ধে হারজিত লেগেই থাকে। এবং জন্মানোর পর সবচেয়ে বড় লড়ায় হয় বেঁচে থাকার। প্রাণ থাকলেই রোগ থাকবে অনেকে খুব তাড়াতাড়ি হার মেনে নিচ্ছেন। তো কেও কেও লড়ায় চালিয়ে যাচ্ছেন শেষ নিশ্বাস পর্যন্ত। এমনই একজন লড়াকু ছিলেন বহরমপুরের ঐন্দ্রিলা শর্মা। ছোট্ট থেকে বংশানুক্রমে পেয়েছিলেন ক্যানসার। এবং তারপরেও লড়ায় করেছিলেন বাঘিনির মতন। ছোট থেকেই অভিনয়, নাচ-গানা খুব পছন্দের ছিল। তাই বড় নায়িকা হতে চেয়েছিলেন। যেমন বলা তেমনই কাজ। বছর ২৫-এর ঐন্দ্রিলা মৃত্যুর আগে নিজের পরিচয় বানিয়ে ফেলেছিলেন একজন খ্যাতনামা অভিনেত্রী হিসেবে। একটার পর একটা বড় পর্দায় হিট। পাশাপাশি সিরিয়ালও করে ছিলেন উনি।

এত কম বয়সী এই যোদ্ধার জীবনে দুবার ক্যানসার ধরা পরেছিল। কিন্তু দ্বিতীয়বার আর এই ক্যানসারের সাথে লড়ায় করতে পারলেন না ঐন্দ্রিলা। মা ভালোবেসে ‘মিষ্টি’ বলে ডাকতো। আর সত্যি মা ও মেয়ের ভালোবাসা এত মিষ্টি ছিল সেটা খুব ভালো ভাবে দেখা যেত। এক সময় মেয়ের কাজের জন্যে কলকাতাতে থাকতে হত ওনাকে। কিন্তু ঐন্দ্রিলা চলে যাওয়ার পর সেই শহরের প্রতি পুরোটাই কমে গিয়েছে। তাই যবে থেকে ঐন্দ্রিলা চলে যান। তবে থেকেই ঐন্দ্রিলার মা বহরমপুরের বুকে মেয়ের স্মৃতি জড়িয়ে বেঁচে আছেন। আজ সেই স্মৃতি নিয়ে ঐন্দ্রিলার নামে গাছ লাগালেন ঐন্দ্রিলা মা ওরফে শিখা শর্মা।