গ্রামে গ্রামে প্লাস্টিক ব্যবহারে রাশ টানার নির্দেশ মন্ত্রী বেচারামের

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ বর্তমান সময়ে নিষিদ্ধ হয়েছে পলি প্যাকেট, প্লাস্টিকের ব্যবহার। প্লাস্টিক নিয়ে পুর এলাকার পাশাপাশি সচেতনতা প্রয়োজন গ্রামস্তরেও। ইতিমধ্যে স্বচ্ছ ভারত প্রকল্পের আওতায় পঞ্চায়েতগুলিকে আনা হচ্ছে। প্লাস্টিক বন্ধের জন্য রাজ্যগুলিকে নির্দেশও দেওয়া হয়েছে কেন্দ্র থেকে। নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন কার্যক্রমও। উল্লেখ্য, প্লাস্টিক ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের বিধি অনুযায়ী ৭৫ মাইক্রোনের কম পুনর্ব‍্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক ব্যবহার নিষিদ্ধ হয়েছে ২০২১ সালে। তবুও গ্রাম স্তরে বাড়েনি সতর্কতা। দূষণ ছড়াচ্ছে প্লাস্টিকের যথেচ্ছ ব্যবহার। 

বহরমপুরে জেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে বুধবার নবনির্বাচিত প্রতিনিধিদের সেই ব্যাপারে সতর্ক করলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্ব প্রাপ্ত মন্ত্রী বেচারাম মান্না। এদিন জেলা পঞ্চায়েত দপ্তরের উদ্যোগে প্রশাসনে অনুষ্ঠিত হয় পঞ্চায়েত ও গ্রামোনয়ন দপ্তরের পর্যালোচনা সভা। সেখানেই নিজদের এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের প্লাস্টিকের ব্যবহার কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করার পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, স্বচ্ছ ভারত প্রকল্পের কাজে মুর্শিদাবাদকে ‘মডেল জেলা’ করতে হবে। এদিন জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে জেলার বেশ কিছু পঞ্চায়েতকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা গাড়ি বিতরণ করা হয়। এই গাড়ি গুলি পঞ্চায়েত এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে বর্জ্য সংগ্রহ করবে।এদিন অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মুর্শিদাবাদের জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র, মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি রুবিয়া সুলতানা, মুর্শিদাবাদের সাংসদ আবু তাহের খান, জঙ্গিপুরের সাংসদ খলিলুর রহমান সহ প্রশাসনিক আধিকারিকেরা।

বহরমপুরের এসে নবগ্রামের কিরীটেশ্বরী মন্দিরে গিয়ে পুজোও দেন মন্ত্রী বেচারাম মান্না। সম্প্রতি দেশের সেরা গ্রামের তকমা পেয়েছে এই কিরীটেশ্বরী গ্রাম। মন্ত্রীর মন্দির পরিদর্শন ঘিরে উচ্ছ্বসিত মন্দির কমিটির সদস্যরা।