মেলায় আগ্রহ নেই পরিযায়ীদের, রাজ্যে কাজ চাইছেন মুর্শিদাবাদের শ্রমিকরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ দেশে নাই ধান/পাখির নেই গান। বাংলার শ্রমিকদের অবস্থা বর্তমান এইরকম। দাবি ওয়েস্ট বেঙ্গল মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কস অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের।সংগঠনের পক্ষে আব্দুর জব্বার বলছেন, “সরকার কাজের ব্যবস্থা না করে মেলার ব্যবস্থা করছেন। এতে আমাদের কী লাভ। সেই তো বাড়িঘর ছেড়ে অন্য রাজ্যে পড়ে থাকতে হচ্ছে।”

সোমবার মকর সংক্রান্তির দিন বহরমপুরে শুরু হয়েছে দু’দিনের শ্রমিক মেলা।মুর্শিদাবাদ শ্রম কমিশনারেটের উদ্যোগে এই মেলা বসেছে শক্তিমন্দির ক্লাবে।সেখানে শ্রম দপ্তর সূত্রে দাবি করা হয় রাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মুর্শিদাবাদে পরিযায়ী শ্রমিক আছে।জেলায় নথিভুক্ত শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় সাড়ে সতেরো লক্ষ।তারমধ্যে কর্মসাথী প্রকল্পে ৪ লক্ষ ২৫ হাজার পরিযায়ী শ্রমিক আছেন।

জেলা শ্রমিক মেলায় অংশগ্রহণকারী শ্রমিকেরা। ছবি-বিদ্যুৎ মৈত্র।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার এই মেলাকে কটাক্ষ করে বলেন, “রাজ্যের মানুষ ভিন রাজ্যে কাজ খুঁজতে যাচ্ছেন। তারা কোথায় কাজে যাচ্ছেন কি কাজ করছেন তার হদিশ দিতে পারে না রাজ্য। এখানে শিল্প থাকলে শ্রমিকদের বাইরে যেতে হত না। সেদিকে খেয়াল নেই সরকারের। কিন্তু নেতাদের কাটমানি পাওয়ার জন্য মেলা খেলার আয়োজন করে তৃণমূল সরকার।”

শ্রমিক মেলায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের বিদ্যুৎ দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী আখরুজ্জামান বলেন “ সরকার যে অসংগঠিত শ্রমিকদের পাশে রয়েছে তা জানানোর জন্যই এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে।” তবে আখরুজ্জামান অবশ্য বিরোধিদের অভিযোগকে তেমন গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তিনি বলেন, “আগের সরকার এই ধরনের কোনও কাজ করেনি। বিরোধিদের কাজই বিরোধিতা করা।তারা ভালো কাজেরও সমালোচনা করে।” কাপাস ডাঙা থেকে শ্রমিক মেলায় এসেছেন বিড়ি শ্রমিক মীরা বিবি। কিন্তু মেলায় কেন এসেছেন তা অবশ্য জানেন না তিনি। তিনি বলেন, “ আমাকে বলা হয়েছিল একটা মিটিং আছে। যেতে হবে তাই এসেছি।”