‘বদলা’ নেওয়ার ফাইনাল খেলা দেখাবে ডিএসএ, ইন্ডিয়ান ব্লুর জার্সিতে ইনসাফ যাত্রীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ বারো বছর পরে ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলছে ভারত। শ্রীলঙ্কাকে ছ’উইকেটে হারিয়ে ২০১১ তে ভারত বিশ্বকাপ জিতলেও এবারের ফাইনালটা যেন ‘বদলা’ নেওয়ার পালা। বিশ সাল আগে এই অষ্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয়েছিল সৌরভ গাঙ্গুলীর “টিম ইন্ডিয়া”। সেবার হেরে গিয়েছিল ভারত। ক্রীড়া প্রেমীরা চাইছেন রোব্বার সেই হারের বদলা নিক রোহিত, শামিরা।

নীল জার্সিতে ডিওয়াইএফের ইনসাফ যাত্রীরা

বিশ বছরে ক্রিকেটের পাশাপাশি অনেকটাই বদলে গিয়েছে সমাজ। কোনও প্রতিবেশীর বড় টিভিতে একসঙ্গে খেলা দেখার মজাটা তখন ও ছিল, বলছিলেন বহরমপুরের বাসিন্দা সমর চক্রবর্তী। বললেন, তখন আমার পঁয়ত্রিশ বছর বয়স। বাড়ির পাশেই এক কাকুর বাড়িতে বড় টিভি ছিল। সেটা থাকত শোয়ার ঘরে। আমরা আব্দার করেছিলাম হয় রাস্তার দিকে ঘুরিয়ে দিতে হবে, না হয় দালানে চালাতে হবে টিভি। কাকুর নিজের সন্তান ছিল না। আমাদের আব্দারে সাড়া দিয়ে কাকু রোয়াকে টিভি দেখার ব‍্যবস্থা করেছিলেন। ভারত হেরে যাওয়ায় কাকুর মন খারাপ হয়ে গিয়েছিল। বলেছিলেন, শোয়ার ঘরে টিভি থাকলে ভারত হারত না।
সময় বদলেছে‌। মহেন্দ্র সিং ধোনীর হাতে যেবার কাপ উঠেছিল সেবার জায়ান্ট স্ক্রিনের পদ চারণার পাশাপাশি আধুনিক টিভিও বাজারে এসেছে। এবার স্মার্ট টিভির সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে স্মার্টফোন। তবুও ক্রিকেট উন্মাদনায় ভাঁটা পরেনি। সেই উন্মাদনার কথা মাথায় রেখে মুর্শিদাবাদ জেলা ক্রীড়া সংস্থা তাদের ঘরেই খেলা দেখার আয়োজন করেছে। দুশো জন ক্রিকেট প্রেমী একসঙ্গে বসে জায়ান্ট স্ক্রিনে খেলা দেখতে পারবেন বলে জানালেন সংস্থার সম্পাদক বিশ্বজিৎ ভাদুড়ি। সকাল থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে গোছগাছ। ক্রিকেট তারকাদের ছবি দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়েছে স্টেডিয়াম চত্বর। বেলা বাড়লে সন্ধ্যায় জায়ান্ট স্ক্রিন বাইরে বের করে দেওয়া হবে। ভারত জেতার অবস্থায় থাকলে ভিড় ও বাড়বে বলে আশাবাদী সংস্থার কর্তারা। তবে স্মার্টফোনে বুঁদ প্রজন্ম আবার কানে হেডফোন গুঁজে একা একা ‘এনজয়’করবে না তো বাইশ গজের দ্বৈরথ? তবে তো বৃথাই আয়োজন। কিশোর ক্রিকেটার সর্বেশ সামন্ত বলেন, সবাই মিলে খেলা দেখলে নানান আলোচনায় কনসেনট্রেশন থাকে না। খেলাটা একমনে দেখলে বিশ্লেষণ করতে সুবিধা হয়। পাশে দাঁড়ানো তার বাবা মধ‍্য চল্লিশের বরুণ বললেন, “এদের সঙ্গে আমাদের এখানেই তফাত। আমি সুযোগ পেলে স্টেডিয়ামেই যাব।”

ক্রিকেট তারকাদের ছবিতে সাজানো হচ্ছে স্টেডিয়াম

এদিকে বিশ্বকাপ ফাইনালের জ্বরে ভুগছে ডিওয়াইএফের নেতা কর্মীরা ও। বহ‍রমপুর থেকে বেড়িয়ে সাগরদিঘিতে শুরু হয়েছে তাদের ইনসাফ যাত্রা। এদিন দুপুরে রসুলপুরে ইনসাফ যাত্রীরা একসঙ্গে খেলা দেখার ব‍্যবস্থা ও করেছেন বলে জানান রাজ‍্য সভাপতি ধ্রুবজ‍্যোতী সাহা।