নয়া আইন বাতিলের দাবিতে ট্রাকচালকদের পাশে দাঁড়াল INTUC

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ ‘হিট অ্যান্ড রান’-এর ঘটনায় নতুন আইনের বিরুদ্ধে দেশ জুড়ে উত্তাল শ্রমিক সংগঠনগুলি। এবার তার রেশ পড়ল শহর বহরমপুরের রাস্তাতেও। নতুন সংহিতা আইনের প্রতিবাদে বহরমপুরে পথে নামল কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন। আইন বাতিলের দাবিতে বৃহস্পতিবার বহরমপুর জেলা কংগ্রেস কার্যালয় থেকে শুরু করে শহর পরিক্রমা করেন মুর্শিদাবাদ জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের কর্মী সদস্যরা। এই মিছিল থেকে নতুন সংহিতা আইন বাতিলের দাবিতে সোচ্চার হন আইএনটিইউসি নেতৃত্ব। এই ‘কালা আইন’ সত্ত্বর বাতিল না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিলেন আইএনটিইউসি নেতা কর্মীরা।I

আইএনটিইউসি নেতা ভাস্কর বাজপেয়ী জানান, “ট্রাক মালিকদের অবস্থা খারাপ। গাড়ি কমে যাচ্ছে, অত্যাধুনিক গাড়ি এসে শ্রমিকদেরও পেটে লাথি মারা হচ্ছে এই কালা আইনের মাধ্যমে। দেশে শুধুমাত্র আদানি ও আম্বানিরা ব্যবসা করবে তার ব্যবস্থায় করছে কেন্দ্র সরকার। অসঙ্গত শ্রমিকরা কত মাইনে পায়? তার মধ্যে পেট্রল ডিজেলের দাম আকাশ ছোঁয়া। এই অবস্থায় ব্যবসা লাটে তোলার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।”

ভারতীয় দণ্ডবিধিকে সরিয়ে আনা ভারতীয় আইন সংহিতায় বলা হয়েছে, চালকের ভুলে গাড়ি দুর্ঘটনা হলে এবং সেটা পুলিশ বা প্রশাসনের কোনও আধিকারিককে না জানিয়ে যদি তিনি পালিয়ে যান, সে ক্ষেত্রে ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড কিংবা ৭ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। আগে আইপিসি বা ভারতীয় দণ্ডবিধিতে এই ধরনের মামলায় শাস্তির মেয়াদ ছিল ২ বছর। কেন্দ্রের এই পরিবহণ নীতির বিরোধিতায় দেশ জুড়ে ট্রাক এবং লরিচালকদের বিক্ষোভ-আন্দোলন চলছে। প্রত্যেক দিনই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে ট্রাক চালকদের বিক্ষোভের খবর মিলছে। তাতে বাদ নেই মুর্শিদাবাদ জেলাও।

এদিন মিছিল থেকে ভাস্কর বাজপেয়ী আরও জানান, “এই আইন এখন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। কিন্তু স্থগিতাদেশ শুধুমাত্র একটি চালাকি। লোকসভা ভোটের পরে আবার এই আইন লাঘু হবে। তাই স্থগিত করে লাভ নেয়। বাতিল করতে হবে এই কালা আইন। এদিন মিছিল শেষে মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসনিক ভবনে স্মারকলিপিও প্রদান করা হয় কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে।