ফিল্মি কায়দায় স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে মৃতদেহ ফেলে চম্পট হরিহরপাড়ায়

মামিনুল ইসলাম, হরিহরপাড়াঃ হরিহরপাড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে পড়ে এক ব্যক্তির মৃতদেহ। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বৃহস্পতিবার সকালে। কীভাবে মারা গেলেন ওই ব্যক্তি? কে বা কারা ওই ব্যক্তিকে ফেলে গেলেন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সামনে, তা নিয়েই হয়েছে জলঘোলা। এদিন হরিহরপাড়ার থানার অন্তর্গত চোঁয়া গ্রামের বাসিন্দা মিনারুল ইসলামের মৃত দেহ রেখে চম্পট একটি সাদা চারচাকা গাড়ি। পুলিশ সূত্রের খবর, সকাল দশটা নাগাদ বছর ৪৯ -এর মিনারুলের মৃত দেহ রেখে চম্পট দেয় গাড়ির চালক সহ এক অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যাক্তি। কে বা কারা এই মৃতদেহ রেখে গেল সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। পরিবার যদিও ‘মার্ডার’ বলে দাবি করছেন। কারণ বেশকিছু মাস আগে মিনারুলের ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে মেয়ের বাড়ির লোক হুমকি দেয় মিনারুলকে মেরে ফেলার। কেস চলছিল তাঁদের নামে। ফলে দীর্ঘদিন ধরে ঘর ছাড়া ছিলেন মিনারুলের পরিবার। মিনারুল পেশায় ছিলেন গাড়ির চালক ফলে বাইরে বাইরেই বেশি সময় কাটাতেন। পুলিশও প্রাথমিক ভাবে এটিকে খুনের ঘটনা বলেই মনে করছে। একদম ফিল্মি কায়দায় লাশ ফেলে চম্পট গাড়ির চালক সহ এক ব্যাক্তি।

চিকিৎসকের প্রাথমিক অনুমান গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। মিনারুলের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।