রবি মরশুমে বাড়ছে বহরমপুর ব্লকের চাষিদের বিমার আবেদন

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ শীত মানেই চাষের সোনালি সময়। শীতকালীন নানান সবজি থেকে বিভিন্ন ধরনের শস্য ও ধান। এই রবি মরশুমে বহরমপুর ব্লকের প্রায় ৪০ হাজার চাষি ফসলের জন্য বিমার আবেদন করেছেন। সংখ্যাটা বেড়েছে আগের বছরের তুলনায়। কৃষি দপ্তর সূত্রের খবর আলু, ভুট্টা, খেসারি, মুসুর, গম, সর্ষে, ছোলা সহ মোট আট রকমের ফসলের ওপর বিমার আবেদনের তারিখ ছিল ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত যা বাড়িয়ে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত করা হয়েছে। বোরো ধানের জন্য চাষিরা ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বিমার আবেদন করতে পারবেন চাষিরা।

বহরমপুর ব্লকের কৃষি দপ্তরের ডেপুটি ডিরেক্টর মিঠুন সাহা জানান, “গত ১৫ই জানুয়ারি পর্যন্ত বহরমপুর ব্লকের প্রায় ৪০ হাজার চাষিরা নিজেদের ফসলের জন্য বিমার আবেদন করে ফেলেছেন। যেহেতু বোরো ধানের জন্য বিমার আবেদনের তারিখ ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত করা হয়েছে তাই এই সংখ্যা আরও বাড়বে।” কৃষি দপ্তর সূত্রে আরও জানা গেছে, পুরো জেলায় আগের বছরের তুলনায় এবছরে প্রায় লাখ খানেক বিমার আবেদন বেড়েছে।জেলা উপ কৃষি অধিকর্তা মোহনলাল কুমার জানান, “চাষের ক্ষতিপূরণ যথা সময়ে পাওয়ার ফলে বিমার আবেদনকারীর আগ্রহ আরও বেড়েছে। আমরাও অধিক সংখ্যক চাষিকে বিমার আওতাভুক্ত করতে নানা ভাবে প্রচার করছি। কৃষকরা তাঁদের অধিকার বুঝে নিচ্ছেন। এই থেকে বুঝতে পারি আমাদের সচেতনতামূলক ক্যাম্পেনে কাজ দিচ্ছে”।

কৃষি দপ্তর সূত্রে আরও জানা গেছে, এইবছর প্রায় আট লক্ষ চাষিকে বিমার আওতায় আনার লক্ষে রয়েছে জেলা কৃষি দপ্তর। ইতিমধ্যে ৭ লক্ষ ৫৬ হাজার চাষিদের বিমার আবেদন করা সম্পূর্ণ হয়েছে। ৩১ তারিখ পর্যন্ত এই টার্গেট সম্পন্ন হবে বলেই মনে করছে কৃষি দপ্তর।