ডিওয়াইএফের হক আদায়ের লড়াইয়ে বেগ দিলেন বাদশা, আভাস

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালগোলাঃ পেশায় অভিনেতা মুর্শিদাবাদের ভূমিপুত্র বাদশা মৈত্র। ঘোষিত বামপন্থী। আর তাই ডিওয়াইএফের ‘ইনসাফ যাত্রী’রা যখন রঘুনাথগঞ্জ ঢুঁরে লালগোলায় ঢুকেছে, তাদের পায়ে পা না মিলিয়ে থাকতে পারেন নি তিনি। বাম যুবরা তাদের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি মতো লালগোলায় মোড়ে মোড়ে সভার আয়োজন করেছিলেন। সেখানে যুবদের পাশে স্বতস্ফুর্ত জনসাধারণের উপস্থিতি দেখে আবেগাপ্লুত অভিনেতা। তিনি বলেন, “এটা কোনও দলের আন্দোলন নয়।।এটা মানুষের আন্দোলন।”

এই কথাটাই ডিওয়াইএফের রাজ‍্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় রাজ‍্য সভাপতি ধ্রুবজ‍্যোতি সাহারা তিন তারিখ অর্থাৎ যেদিন থেকে হক আদায়ের যাত্রা শুরু হয়েছে সেদিন থেকে বলে আসছেন। এদিনও মীনাক্ষী বলেছেন, ” আমরা ইনসাফ যাত্রীরা বেড়িয়েছি পশ্চিমবঙ্গের বেকার, খেটে খাওয়া, মেহনতি গরীব মানুষের বাড়ির বেকার ছেলেমেয়েদের একটা কাজ আর পেট পুরে খাবার জোগাড়ের জন্য।” আরও বলেছেন ” সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে এই সরকার অন‍্যায় করেছে। কারখানা তাড়ানো বা জমিতে নতুন কারখানা না বানানো। দেশের সরকারের সঙ্গে যোগসাজশ করে পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্র সরকারের ইউনিটগুলো বন্ধ করে দেওয়ার মতো ক্ষতি করেছে সরকার। সেই বিপদ থেকে উদ্ধার পেতে মানুষের দাবিতে মানুষের লড়াইকে প্রতিষ্ঠা করতেই এই ইনসাফ যাত্রা।”

বাদশা বলছেন, “ যাঁরা অনায়াসে একটা চাকরি জুটিয়ে আরামের জীবন কাটাতে পারত সেই সব শয়ে শয়ে ছেলেমেয়ে রাস্তায় নেমে আন্দোলন করছে। তাদের এই লড়াইকে আমি কুর্নিশ জানাই।” তিনি যুবদের পাশে থাকার বার্তাও দিয়েছেন। তিন তারিখ থেকে ১৪ তারিখ। বারোদিন পথে আছে ডিওয়াইএফের নেতা কর্মীরা। গতি শ্লথ , কিন্তু আবেগে ভরপুর। সেই আবেগকে উসকে দিতে মঙ্গলবার তাদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন প্রাক্তন যুব নেতা আভাস রায়চৌধুরী। সাইদাপুরে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, “ মানুষের ভালবাসায় রাস্তায় হাঁটছে যুবরা, রাস্তায় হাঁটছেন সাধারণ মানুষ। মানুষকে ইনসাফ আদায় করতে হলে লড়াইয়ের মাঠে নামতে হবে, পশ্চিমবঙ্গের সরকার যারা আর এস এসের বিরুদ্ধে একটা কথাও বলে না তাদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে।” রাজ‍্যে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়ের “জন জোয়ার” কর্মসূচি নজর কেড়েছিল রাজ‍্যবাসীর। সেই কর্মসূচিকে ‘যাত্রাপালা’ বলে কটাক্ষ করেন ইনসাফ যাত্রায় অংশ নেওয়া আর এক সিপিএম নেতা শতরূপ ঘোষ। তিনি বলেন, “ এর আগে বারোশো পুলিশ নিয়ে যাত্রা হচ্ছিল। এখানে পুলিশ নেই। আছে শত শত সাধারণ মানুষ। যে যে দলই করুন না কেন তার চোখের জল সত্যি হলে তাদের জন্য ইনসাফ চাইছে ডিওয়াইএফ (আই)”।