বোলপুরে তিন মাসে মৃত্যু ডজন খানেক পথ কুকুরের

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ বোলপুরে মৃত্যু হল প্রায় ডজন খানেক কুকুরের। ছোট-বড় সমস্ত ধরনের কুকুরের রহস্যজনক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সমস্ত বীরভূম জুড়েই। ২০২৩-এর নভেম্বর মাসে বোলপুর কৃষক বাজারে একটি মা কুকুর ৬ বাচ্চার জন্ম দিয়েছিল। অভিযোগ ছিল কেউ বা কারা নৃশংসভাবে সদ্যোজাত ছানাগুলিকে থেঁতলে মেরে ফেলে। ঘটনার পর দুজনকে গ্রেফতারও করেছিল শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ।

কিন্তু সেই রেশ কাটতে না কাটতেই দু’মাসের মাথায় বীরভূমে আবার সেই একই ছবি উঠে এল। মঙ্গলবার সিউরিতে মোট ৮টি কুকুরছানার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। টিনবাজারের মাছবাজারের পাশেই মাছ রাখার থার্মোকলের বাক্সতে মৃতদেহগুলি রাখা ছিল। ঘটনাটি ঘটেছে সিউরি থানার অন্তর্গত টিনাবাজার এলাকায়। স্থানীয়দের তৎপরতায় কুকুরগুলিকে নিয়ে যাওয়া হয় সিউরির পশু চিকিৎসালয়ে। সেখানে একে একে মৃত্যু হয় সমস্ত বাচ্চাগুলির।

এবং ঠিক পরের দিন বুধবার ফের একই ছবি উঠে এল নানুর গ্রাম থেকেও। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে মারা হয় কুকুরছানাদের। এই ঘটনায় মৃত্যু হয় মোট ৭টি কুকুরের। এবং অসুস্থ আরও একাধিক কুকুর। ইতিমধ্যেই স্থানীয়দের তৎপরতায় খবর পাঠান হয় নানুর ব্লক প্রাণী সম্পদ বিকাশ দপ্তরের আধিকারিক ডঃ মিহির কুমার ঘোষকে। তারপর চিকিৎসকদের তৎপরতায় শুরু হয় অসুস্থ কুকুরদের চিকিৎসা।

কিন্তু এখানেই প্রশ্ন উঠছে মানুষের মানসিকতা নিয়ে। ঠিক একই কায়দায় মেড়ে ফেলা হচ্ছে বাচ্চা কুকুরগুলিকে। কে বা কারা এই কাজের সঙ্গে যুক্ত তার খোঁজে দুই থানার পুলিশ।