যুবদের ইনসাফ যাত্রায় সেলিমের মুখে দেওচা পাঁচামি ইস্যু

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ রাজ্য জুড়ে শুরু হয়েছে ইনসাফ যাত্রা। পাহাড় থেকে সাগর ইনসাফ যাত্রা এসে পৌঁছেছে মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলায়। ইনসাফ যাত্রার ১৪ তম দিনে ভগবানগোলা ২ নম্বর ব্লকের জাফরের মোড়ের জনসভায় যোগ দিলেন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম। এদিনের জনসভা থেকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারকে তীব্র নিশানা করেন সেলিম। পাশাপাশি সরব হন দেওচা পাঁচামি কয়লাখনি ইস্যু নিয়েও। বৃহস্পতিবার জনসভায় সেলিম বলেন, “প্রতিবাদের ভাষা ভুলিয়ে রাখার চেষ্টা হচ্ছে আজকের দিনে। আমরা তা মানি না। অসহায় মানুষকে নিজের মুনাফার জন্য ব্যবহার করে শাসকদল। মিড ডে মিল, আইসিডিএস-এর টাকা লুঠ হচ্ছে। দিল্লিতে মোদীর আর রাজ্যে দিদির লুঠ চলছে। আর মানুষকে হিন্দু মুসলমান ধর্মের পট্টি পড়িয়ে রাখা হয়েছে। বেকার ছেলেদের কাজ কে দেবে? মন্দির মসজিদের নাম করে বেকারদের কাজ, পানীয় জল, স্বাস্থ্য, রাস্তা এসব থেকে ভুলিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। আর যারা বলছে তাঁদের নামে মিথ্যা মামলা করা হচ্ছে, জেলে পাঠানো হচ্ছে।”

এদিন তৃণমূলের দুর্নীতি প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, মমতা ব্যনার্জীর তৃণমূল আরএসএসের হয়ে কাজ করছে। ১১ বছরে তৃণমূলের কত নেতা মন্ত্রী জেলে গেছে। কিন্তু ইডি সিবিআইয়ের ধক আছে কোনো বামপন্থী নেতামন্ত্রীকে ডাকতে পারে? তৃণমূল মানেই চুরি, লুঠ, দুর্নীতি। আরও বলেন এই ১২ বছরে কত পেলেন আর কত খেলেন হিসেব দিন?

মিছিলের পরে হয় জনসভাও। সেই জনসভা থেকে বর্তমান সময়ের দেওচা পাঁচামি সহ বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্য তথা কেন্দ্রের সমালোচনা করেন সেলিম। বাম যুবদের ইনসাফ যাত্রা এখন মানুষের পদযাত্রা হয়ে গেছে, বলেন এই সিপিএম নেতা। শ্রমিক,কৃষক, কর্মচারী থেকে সাধারণ মানুষের স্বতস্ফূর্ত উপস্থিতি দেখা গেছে বামেদের এই ইনসাফ যাত্রায়। ভগবানগোলার সভা সেরে এদিন রানীনগরের উদ্দেশ্যে রওনা দেন সিপিআই(এম) রাজ্য সম্পাদক।