জেলায় ‘ন্যায় যাত্রা’র বিশদ তথ্য জানতে কংগ্রেসকে ফোন সিপিএমের

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ দিন তিনেক পরেই মুর্শিদাবাদ জেলায় প্রবেশ করবে কংগ্রেসের ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’। জেলায় তাঁদের দিন দুয়েকের কর্মসূচি রয়েছে। তাঁর জেলা সফরকালে কংগ্রেসের পাশে থাকবে বামেরা। রাজ্য সিপিএমের এহেন সিদ্ধান্ত মেনে সিপিএমের পক্ষ থেকে আগাম ফোন করে কংগ্রেসের ন্যায় যাত্রার খোঁজ খবর নেওয়া হয়েছে সোমবার সকালে।

পূর্ব ঘোষণা মতো জেলায় ন্যায় যাত্রায় থাকার কথা সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিমের। সোমবার সকালে সিপিএমের জেলা সম্পাদক জামির মোল্লার সঙ্গে জেলা কংগ্রেস মুখপাত্রের ফোনে কথোপকথোন হয় এ বিষয়ে। ফোনে তাঁকে ন্যায় যাত্রার কর্মসূচি নিয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন কংগ্রেস মুখপাত্র। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে জেলা নেতাদের সঙ্গে নিয়েই কংগ্রেসের ‘ন্যায় যাত্রা’য় হাঁটতে দেখা যাবে  সেলিমকে।

এর আগে উত্তরবঙ্গে  বাম নেতৃত্বকে রাহুলের ‘ন্যায় যাত্রা’য় পা মেলাতে দেখা গিয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশমতো রাজ্য সিপিএম আগেই জানিয়েছিল অন্য জেলাতেও সিপিএম নেতৃত্বকে দেখা যাবে। এদিন জামির বলেন, “বিষয়টি কেন্দ্রীয় স্তরে সিদ্ধান্ত হয়েছে। আমরা ওদের কাছে কর্মসূচির বিস্তারিত জেনেছি। এরপর জেলায় প্রবেশ করলে আমরাও আমাদের উপস্থিতি জানিয়ে দেব।” জেলা কংগ্রেস মুখপাত্র জয়ন্ত দাসও বলেন, “সিপিএমের জেলা সম্পাদক ফোন করেছিলেন সোমবার। তাঁর সঙ্গে ন্যায় যাত্রার কর্মসূচি রুট প্রভৃতি নিয়ে কথা হয়েছে।” তবে সিপিএমের শরিক দল হিসেবে অন্যরা উপস্থিত থাকবে কি না সে ব্যাপারে অবশ্য কথা হয়নি বলেই জানান জয়ন্ত। সিপিএম জেলা সম্পাদক জামির জেলা বামফ্রন্টেরও আহবায়কও। জামির বলেন, “অন্য শরিকদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।”

সূত্রের দাবি, ৩১ জানুয়ারি রাহুল গান্ধীর ‘ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রা’ আসার কথা মালদহে। সিপিএমের শতরূপ ঘোষ সেখানে উপস্থিত থাকবেন। মুর্শিদাবাদে ‘ন্যায় যাত্রা’ পৌঁছনোর কথা ১ ফেব্রুয়ারি। সেখানে মহম্মদ সেলিমের সঙ্গে যুবনেত্রী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়ও থাকতে পারেন। বাম যুব সংগঠনের সূচি অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারী মুর্শিদাবাদে রক্তদান শিবিরে হাজির থাকবেন সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় ও রাজ্য সভাপতি ধ্রুবজ্যোতি সাহা। সেই সূচির দিন দুয়েক পরে তিনি ফের জেলায় এসে কংগ্রেসের নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে পারবেন কি না তা অবশ্য নিশ্চিত নয় বলেই দলীয় সূত্রে খবর।