সামসেরগঞ্জে চক্রান্তঃ দাবি তৃণমূল বিধায়কের!

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ সামসেরগঞ্জে রবিবার গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এক কংগ্রেস কর্মী। সেই ঘটনায় পুলিশ আটক করল এক তৃণমূল নেতাকে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত আশরাফুল হক সামসেরগঞ্জের তিনপাকুরিয়া অঞ্চলের ৮৪ নম্বর বুথ সভাপতি। যদিও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী এই ঘটনায় সামসেরগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক আমিরুল ইসলামকে সরাসরি বিঁধেছেন এবং তৃণমূল বিধায়ককে গ্রেফতারের দাবিও জানিয়েছেন।

পঞ্চায়েত ভোটের আগে রবিবার ফের অশান্তি মুর্শিদাবাদে। রাতের অন্ধকারে চলল গুলি। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন সামসেরগঞ্জের এক কংগ্রেস কর্মী। সোমবার মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওই কংগ্রেস কর্মীকে দেখতে যান বহরমপুরের সাংসদ, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। ভোটে অশান্তি নিয়ে তৃণমূলকেই নিশানা করেছেন অধীর।

পাল্টা দিয়েছেন সামসেরগঞ্জে তৃণমূল বিধায়ক আমিরুল ইসলাম। তাঁর দাবি, বাবুপুরে নির্বাচনী কার্যালয় থেকে ফিরছিলেন তিনি। সেই সময় রাস্তায় কংগ্রেস কর্মীরা তাঁর গাড়িতে হামলা করে। কংগ্রেসই গুলি চালায় বলে অভিযোগ বিধায়কের। এই ঘটনায় সোমবার সামসেরগঞ্জ থানার পুলিশ আটক করল সামসেরগঞ্জের তিনপাকুরিয়া অঞ্চলের ৮৪ নম্বর বুথ সভাপতি আশরাফুল হককে।

রবিবার রাতে, পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচার সেরে বাড়ি ফিরছিলেন মুর্শিদাবাদের চার নম্বর জেলা পরিষদ আসনের কংগ্রেস প্রার্থী আনারুল হক। সেই সময় তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। কংগ্রেসের দাবি, বিধায়ক আমিরুল ইসলামের উপস্থিতিতে হামলা চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন কংগ্রেস কর্মী আরিফ শেখ।