মুর্শিদাবাদের ‘জব ফেয়ার’-এ এসেছে টাটা মোটরস থেকে এলএন্ডটি-এর মতন কোম্পানি, চাকরি পেতে প্রথমদিন নাম লেখাল তিন শতাধিক

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুরঃ কারিগরী শিক্ষা দপ্তরের উদ্যোগে মুর্শিদাবাদ জেলায় শুরু হল জব ফেয়ার । চলতি সপ্তাহে মঙ্গলবার থেকে বহরমপুর আইটিআই-এ বসেছে জব ফেয়ার। রাজ্য এবং ভিন্ রাজ্যের একাধিক নামী-দামি কোম্পানি এখানে এসেছে কাজের সন্ধান দিতে। পলিটেকনিক থেকে আইটিআই কোর্সের প্রশিক্ষিত প্রার্থীরা এই মেলায় অংশ নিতে পারবেন দপ্তর সুত্রে জানা যায়। ১৪ই ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে এই মেলা।
মূলত ইলেকট্রনিক্স, টেক্সটাইল ও পলিটেকনিকের ছাত্র-ছাত্রীরা এই জব ফেয়ারে অংশ নিচ্ছেন। কারিগরী কোর্সে প্রশিক্ষিতদের জন্য এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে বলে আধিকারিকদের দাবি।

আইটিআই-এর অধ্যক্ষ বিক্রম মুখার্জি জানান, “এবারের জব ফেয়ারে ১৪টি কোম্পানি অংশগ্রহন করেছে। বেশকিছু বড়বড় কোম্পানিও এসেছে। যদিও এরা সরাসরি নিয়োগ করেনা। তারা নিয়োগকারী সংস্থার মাধ্যমে এখানে বিভিন্ন কোম্পানিতে নিয়োগ করছেন। আগের তুলনায় এই বছর জব ফেয়ারে চাকরিপ্রার্থীদের আগ্রহ কম। কারণ আগে একটি জেলাতেই জব ফেয়ার হত। এখন আশেপাশের জেলাতেও হচ্ছে ফলে চাকরি প্রার্থীরা কমবেশি ভাগ হয়ে যাচ্ছেন।”

মুর্শিদাবাদের মতন প্রান্তিক জেলা যেখানে বেশিরভাগ মানুষ চাষের সঙ্গে জড়িত কিংবা পরিযায়ী শ্রমিক হিসেবে ভিন্ রাজ্যে কাজে যুক্ত, সেখানে রাজ্য সরকার দ্বারা পরিচালিত জব ফেয়ারের মতন কর্মসূচী খুব লাভবান হতে পারে বলে মনে করেন একটি বেসরকারি কোম্পানির রিক্রুটার মধুমিতা চৌধুরী। তিনি বলেন, “এই জেলার ছেলে-মেয়েরা কাজ করতে চায়। হতে পারে টাকা পয়সার অভাব বা সুযোগের অভাব। সেখানে দাঁড়িয়ে এই জব ফেয়ার তাঁদের অনেক সাহায্য করবে। প্রথম দিনের উৎসাহ দেখে তেমনটাই মনে হচ্ছে।”

দপ্তর সুত্রে জানা যায়, জব ফেয়ারের প্রথমদিন ৩০৮ জন তাঁদের নাম নথিভুক্ত করেছেন। বেসরকারি কোম্পানিতে নিজের নাম নথিভুক্ত করতে এসেছেন লালচাঁদ সেখ। লালচাঁদ গত পাঁচ বছর ধরে ইলেক্ট্রিক্যাল লাইনে কর্মরত। তাঁর আশা কারিগরী শিক্ষা দফতরের উদ্যোগে আয়োজিত এই জব ফেয়ারে এসে তিনি কোনও না কোনও কোম্পানিতে তাঁর লাইনের কাজ পাবেন।

সাধারণত, উচ্চমাধ্যমিক উত্তীর্ণ হওয়ার পর অনেক পড়ুয়া কারিগরী শিক্ষার দিকে এগোচ্ছেন কর্মসংস্থানের আশায়। অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণ হওয়ার পরেও অনেক ধরনের কারিগরী শিক্ষার বা কোর্সের চাহিদা রয়েছে পড়ুয়াদের কাছে। তাদের সঙ্গে বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (ভিটিসি) সফল প্রার্থীরাও এই চাকরির মেলায় অংশ নিতে পারবেন।