তিন রাজ্যে বিজেপির জয়, জয়ে উচ্ছ্বসিত শাখারভও

নিজস্ব সংবাদাদতা, বহরমপুরঃ মধ্যপ্রদেশ সহ বাকি দুই রাজ্যেই পালাবদল । ক্ষমতায় বিজেপি। লোকসভা ভোটের আগে এই সাফল্যে উচ্ছ্বসিত বহরমপুরের বিজেপি নেতৃত্বও। রবিবার বহরমপুরে অকাল হোলিতে মাতলেন বিজেপি নেতা কর্মীরা। লোকসভা ভোটের আগে ৫ রাজ্যের বিধানসভা ভোটে সবার চোখ ছিল। রবিবার সেই ফলাফলে দেখা গেল বিজেপি ৩ রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে চলেছে। এবং তেলেঙ্গানাতে জয়ী হল কংগ্রেস। এদিন জেলা বিজেপি নেতৃত্ব থেকে নেতা কর্মীরা মিছিল করে বিজয় উচ্ছ্বাসে সামিল হলেন। গেরুয়া আবির খেলায় মাতলেন নেতা কর্মীরা।

রবিবার ছুটির দিনে একঝাঁক দলীয় বিজেপির দলীয় কর্মীরা একসাথে জয়ী হওয়ার খুশিতে পথে নামলেন। সঙ্গে ছিলেন  বহরমপুর সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সভাপতি শাখারভ সরকার, এই দিনের বিজয় মিছিল থেকে তির দাগলেন সাংসদ অধীর চৌধুরীর দিকে, “ইয়ে তো ট্রেলার থা, পিকচার আভি বাকি হে। এই যে তিন রাজ্যের হার হল। তার দায়ভার লোকসভার বিরোধী দলনেতা অধীর বাবু কেও নিতে হবে। উনি (অধীর) প্রস্তুত থাকুক ২০২৪ সালে লোকসভা ভোটে হেরে যাওয়ার জন্যে।” এছাড়াও তিনি আরও বলেন, “২০২৪ সালে অধীর চৌধুরী তৈরি থাকুক রিটায়ারমেন্ট নেওয়ার। ফেয়ারওয়েল দেব ২০২৪ এই।”

২০১৯-এ দেশজুরে বিজেপি ঝড় বইলেও। বহরমপুরে লোকসভা ভোটের চিত্রটা একদমই অন্যরকম ছিল। এমনটাই বলছে পরিসংখ্যান। অধীর চৌধুরী পেয়েছিলেন ৫৯১১০৬, তৃণমূলের অপূর্ব সরকার ভোট পেয়েছিলেন ৫১০৪১০ এবং সেখানেই দাঁড়িয়ে ১৪৩০৩৮। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে বহরমপুর কেন্দ্রে জেতে বিজেপি। কিন্তু সেখানেও ৭টা বিধানসভায় ৬টি সিটে জিতেছিল তৃণমূল এবং ১টি বিজেপি এবং কংগ্রেস শূন্য। কিন্তু সেই রূপ পাল্টে যায় পৌরসভা এবং পঞ্চায়েত ভোটে। কোন ম্যাজিকে হাল ফিরবে। উত্তর নেই পদ্ম শিবিরের কাছেও।