বহরমপুর থেকে বাংলাদেশে পাড়ি দেবে ‘শোলার বঙ্গবন্ধু’ ।

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ মুর্শিদাবাদ জেলার প্রাচীন শোলার কাজের খ্যাতি জগৎজোড়া। সামনে দুর্গাপুজো তার আগে কর্মব্যস্ত শোলা শিল্পীরাও। শতাব্দী প্রাচীন এই হস্তশিল্প। পূর্বে দেবদেবীর গহনা তৈরির কাজে ব্যবহৃত হত এই শোলার কাজ। তবে আজ এই শোলা আটকে নেই শুধু ডাকের সাজের কাজে। জেলার ঐতিহ্য এই শোলার কাজ ও শোলা শিল্পীরা। এবার জেলার শিল্পীর তৈরি বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি পারি দেবে পাশের দেশ বাংলাদেশে।

২০০৬ সালে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার প্রাপ্ত শোলা শিল্পী সমীর কুমার সাহা। দীর্ঘ ৪৫ বছর সময় ধরে শোলার কাজে হাত পাকিয়েছেন তিনি। আজ তিনি জেলা তথা রাজ্যের একজন স্বনামধন্য শিল্পী। একনামে সকলে চেনে তাঁকে। ছোটবেলায় নিতান্তই হাতের কাজ হিসাবে শুরু করেছেন, পরে নিজেকে সম্পূর্ণ ডুবিয়ে দিয়েছেন এই কাজে। আজ তাঁর ধ্যানজ্ঞান সবটা জুরেই শোলার কাজ। এখন নিজের কারখানা হয়েছে যেখানে প্রায় ৪০ জন শিল্পী, কারিগর কাজ করেন। কাজের অর্ডার আসে দূরদূরান্ত থেকে। অংশগ্রহণ করেন ভিনরাজ্য তথা ভিন দেশের মেলা প্রদর্শনীতেও।

শোলার বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি, শোলার তৈরি দুর্গা, থেকে শুরু করে আরও নানান জিনিস নিয়ে পাশের দেশ বাংলাদেশে প্রদর্শনীতে পারি দেবেন শিল্পী সমীর সাহা। এর আগে ব্রাজিল, চিন, আফ্রিকা বিভিন্ন দেশে গিয়েছেন শিল্পী। সাথে করে নিজের কাজ। এবারে বাংলাদেশ যাবেন দুর্গা মূর্তি নিয়ে। সাথে করে নিয়ে যাবেন দেশ নায়ক মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিও। চলছে তারই প্রস্তুতি।