“অপহরণ” নয় “মতাদর্শ চেঞ্জ” বহরমপুরে তৃণমূল অফিসে সেই কংগ্রেস প্রার্থী !

নিউজ ডেস্ক, মধ্যবঙ্গ নিউজঃ  অপরহণ করা হয়েছে দলের জয়ী প্রার্থীকে। দাবী করেছিল কংগ্রেস। সেই দাবীর ২৪ ঘন্টার মধ্যেই জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী যোগ দিলেন তৃণমূলে। কার্যত যবনিকা পতন বহরমপুরে ‘এপিসোড অপহরণ’এর । শুক্রবার  বহরমপুরের মনীন্দ্রনগর

পঞ্চায়েতে  জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী সৌমেন সরকার  যোগ দিলেন তৃনমূলে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কংগ্রেস নেতারা দাবি করেছিলেন, অপরহণ করা হয়েছে মনীন্দ্রনগর গ্রাম পঞ্চায়েত্র জয়ী প্রার্থী সৌমেন সরকারকে । এদিন বেলা সাড়ে এগারোটায় সেই সৌমেন সরকারের দেখা মিলল বহরমপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের দপ্তরে। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, অপহরণ হয় নি। হচ্ছে কুৎসা। স্বেচ্ছায় তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কংগ্রেস অভিযোগ করেছিল,  পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনের আগে বহরমপুরে পঞ্চায়েতে জয়ী  কংগ্রেস প্রার্থীকে অপরহণ করেছে  তৃণমূল ।   মনীন্দ্রনগর গ্রাম পঞ্চায়েত্র জয়ী প্রার্থী সৌমেন সরকারকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছিল । থানার বাইরে বিক্ষোভ দেখায়  কংগ্রেস নেতারা। কংগ্রেসের দাবি ছিল , বৃহস্পতিবার  বিকেলে পঞ্চাননতলা লাগোয়া কারবালা রোডের কাছে বাইক চালিয়ে যাচ্ছিলেন সৌমেন সরকার। সেই সময় দুটি চার চাকার গাড়ি রাস্তা আটকায় বলে অভিযোগ। সেখান থেকেই ওই জয়ী প্রার্থীকে অপহরণ করা হয় বলে অভিযোগ।   বহরমপুর থানায় কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দায়ের করা হয়  লিখিত অভিযোগ। ওই কংগ্রেস প্রার্থীর স্ত্রী রুণা সরকারের  দাবি ছিল , পঞ্চায়েত ভোটে জেতার পর দল বদলের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল। আলোচনায় বসার জন্য ডাকা হচ্ছিল। রাজি না হওয়াতেই এই অপহরণ করেছে তৃণমূল। অপরহণের আশঙ্কা বাড়িতেও জানিয়েছেন সৌমেন সরকার।

যদিও এদিন সৌমেন সরকার বলেছেন, কোন চাপ ছিল না। তিনি স্বেচ্ছায় তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। সৌমেনের সাফাই, স্ত্রী হয়তো কংগ্রেস নেতাদের কথা শুনে অভিযোগ করেছেন। যোগদান ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজাও।  বহরমপুরের মণীন্দ্রনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে মোট আসন ৩০। ১০  টি আসন পেয়েছে তৃণমূল, এর মধ্যে ১ টি আসনে তৃণমূল জিতেছিল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায়। এবার এক কংগ্রেস প্রতিনিধি তৃণমূলে যোগ দেওয়ায়, তৃণমূলের পক্ষে এলেন ১১ জন সদস্য। এই পঞ্চায়েতে,    ১০ টি আসনে পেয়েছে বিজেপি,  ৯ টি আসন পেয়েছে কংগ্রেস।   একটি আসনে জিতেছেন নির্দল প্রার্থী। এবার কংগ্রেসের পক্ষ থাকলেন মাত্র ৮ জন।