অধীরঃ রাজ্যের পুলিশ (Police) নিরাপদকে ধরতে পারে কিন্তু আপদকে ধরতে পারে না

এদিন ওই সাংবাদিক সম্মেলনেই রাজ্যের বুদ্ধিজীবীকে 'তৃণজীবী' বলেও কটাক্ষ করেছেন সাংসদ।

নিজস্ব সংবাদদাতা, বহরমপুর:  কড়া ভাষায় রাজ্য পুলিশ (Police)-এর  নিন্দা করলেন বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। উত্তপ্ত সন্দেশখালি (Sandesh Khali) নিয়ে এদিন তিনি বলেন, পুলিশ নিরাপদকে ধরতে পারে। কিন্তু আপদকে ধরতে পারে না।” বাগ্মী অধীর (Adhir) এক শব্দে দু-টি পাখি মেরেছেন বলে দাবি রাজনৈতিক শিবিরে।

দিন তিনেক আগে সন্দেশখালি কান্ডে  জড়িত থাকার অপরাধে পুলিশ সন্দেশখালির (Sandesh Khali)-র প্রাক্তন বাম বিধায়ক নিরাপদ সর্দারকে গ্রেপ্তার করেছে। এদিন তার বিরোধীতা করেও বহরমপুরের সাংসদ এই দাবি করতে পারেন বলে অনুমান অনেকের। সরকারিভাবে ঘোষণা না হলেও লোকসভা নির্বাচনের রাজ্যে ‘ইন্ডিয়া’ জোট হচ্ছে না ঠারে ঠোরে জোট সঙ্গীরা তা বুঝিয়ে দিতেও কসুর করছেন না। সেক্ষেত্রে বামেদের সঙ্গে নিয়েই বাংলায় ভোটে লড়বার প্রস্তুতি নিচ্ছে কংগ্রেস। সেই জোট সঙ্গীর প্রাক্তন বিধায়ককে পুলিশ গ্রেপ্তার করার প্রতিবাদেই রাজ্য পুলিশের নিন্দা করেছেন সাংসদ, দাবি একপক্ষের।

আরও পড়ুনঃ Sandesh Khali, আঁচ লাগলো Murshidabad জেলাতেও

আবার একইসঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সন্দেশখালির সাধারণ মানুষকেও গ্রেপ্তার করতে হয়েছিল পুলিশকে।  তাদেরকে ‘নিরাপদ’ বলে সন্দেশখালি কান্ডে অভিযুক্ত এলাকার নেতা অধরা শেখ শাহজাহানকে “আপদ” বোঝাতেি কথার খেলায় রাজ্য পুলিশের নিন্দা করেছেন অধীর। মত অন্য অংশের।

এদিন ওই সাংবাদিক সম্মেলনেই রাজ্যের বুদ্ধিজীবীকে ‘তৃণজীবী’ বলেও কটাক্ষ করেছেন সাংসদ। তিনি বলেন, ” বুদ্ধিজীবীরা চুপ করে গিয়েছেন সন্দেশখালির কান্ডে। কারণ তাদের প্রতিবাদ করবার সেই হিম্মতটা নেই।”