মুর্শিদাবাদে সাঁতার প্রতিযোগিতায় ৯ বিদেশী সাঁতারু ! রবিবারের প্রস্তুতি তুঙ্গে।

দেবনীল সরকার, বহরমপুরঃ নদীবক্ষে বিশ্বের দীর্ঘতম সাঁতার প্রতিযোগিতা। সুদীর্ঘ ৭৭ বছর ধরে মুর্শিদাবাদ জেলায় হয়ে আসছে এই সাঁতার প্রতিযোগিতা। কোভিড মহামারীর কারণে তিন বছর বন্ধ থাকলেও এই বছর আবার স্বমহিমায় হতে চলেছে বিশ্বের দীর্ঘতম সাঁতার প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ, যথা – মালয়েশিয়া, স্পেন, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, বাংলাদেশ থেকে সাঁতারুরা। পাশাপাশি জম্মু কাশ্মীর থেকে তেলেঙ্গানা, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, গুজরাট ও পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতবর্ষের বিভিন্ন রাজ্য থেকে পুরুষ ও মহিলা সাঁতারুরা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন।

রবিবার, ৩রা সেপ্টেম্বর মুর্শিদাবাদের আহিরন ব্যারেজ ঘাট থেকে শুরু হবে ৮১ কিলোমিটার ও জিয়াগঞ্জ সদরঘাট থেকে শুরু হবে ১৯ কিলোমিটারের সন্তরণ প্রতিযোগিতা। এই সাঁতার প্রতিযোগিতা শেষ হবে বহরমপুরের গোরাবাজার কলেজঘাটে। ৮১ কিলোমিটারের সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে সুদূর স্পেন থেকে আসছেন সাঁতারু ড্যানিয়েল পন্স জিমিনেজ ও জস লুইস লেরওসা, মালয়েশিয়া থেকে আসছেন মোঃ জাইমার বিন ওমার, উই লি চং ও সন্দীপ কুমার, থাইল্যান্ড থেকে চুং কেইথ, শ্রীলঙ্কা থেকে রোশন আবেইসুন্দরা। ১৯ কিলোমিটারের সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে বাংলাদেশ থেকে আসছেন পলাশ চৌধুরী ও মোঃ আসিফ হাজরা এবং সোনিয়া আকতার ও সুরাইয়া আকতার। এছাড়াও জম্মু-কাশ্মীর, তেলেঙ্গানা, মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তের পুরুষ ও মহিলা সাঁতারুরা।

মুর্শিদাবাদ সুইমিং অ্যাশোসিয়েসনের সম্পাদক দেবেন্দ্রনাথ দাস, বৃহস্পতিবার সাংবাদিক বৈঠকে জানান, কোভিড মহামারীর কারণে তিন বছর বন্ধ থাকলেও এই বছর আবার স্বমহিমায় হতে চলেছে বিশ্বের দীর্ঘতম সাঁতার প্রতিযোগিতা। সেদিন রাজ্যের সম্মানীয় মন্ত্রী ও অন্যান্য আধিকারিকদের উপস্থিতিতে হবে এই সাঁতার প্রতিযোগিতার সূচনা। তিনি আরও জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর আরও বৃহত্তর আকারে হবে এই প্রতিযোগিতা, প্রত্যেক সাঁতারুর জন্য থাকবে আলাদা আলাদা সেফটি বোটের ব্যবস্থাও। পুরো সাঁতার প্রতিযোগিতাটি হবে ড্রোনের নজরদারীতে। এবারের প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের জন্য ব্যবহৃত হবে ড্রোন।