২১ এর আগে বাম-কং জোট নিয়ে সরগরম মুর্শিদাবাদের রাজনৈতিক মহল

চিরঞ্জীত ঘোষ বহরমপুর ১২ই সেপ্টেম্বর- ২য় বার পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি হওয়ার পর জোট ফর্মুলাতে আস্থা বহরমপুরের সাংসদ ও লোকসভার কংগ্রেসের পরিষদীয় দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর। ২১ এর বিধানসভা ভোটেও বাম কং সমঝোতায় গ্রিন সিগন্যাল দিয়েছেন তিনি। ২০১৬ র বিধানসভা ভোটের সময় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি থাকাকালীন অধীর রঞ্জন চৌধুরী বাম কং জোট করেন। আবার সেই জোটের ওপরেই ভরসা। জোটের পথে হাঁটলে বাংলায় কতটা লাভবান হবে বাম কংগ্রেস? মুর্শিদাবাদ জেলার রাজনৈতিক মহল এই জোট সমীকরণ নিয়ে বেশ সরগরম। যেখানে গত বিধানসভা ভোটে ৪৪ টি আসন পেয়ে কংগ্রেস বিরোধী দলের মর্যাদা পেয়েছিল এই রাজ্যে, সেখানে বামেদের ফল আশাব্যাঞ্জক ছিল না। ২১ এর ভোটে বাম কংগ্রেস জোট- কি লাভজনক হবে উভয় দলের ক্ষেত্রে? জেলা কংগ্রেস নেতা মহফুজ আলমের দাবি, আরও শক্তিশালী জোট হতে চলেছে এবর । এই জোটকে সামনে রেখেই ২১ এর ভোটে লড়তে ইতিমধ্যেই কমিটি তৈরির প্রস্তুতি চলছে।বর্ষীয়ান সিপিআইএম নেতা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সিপিআইএম মুর্শিদাবাদ জেলা সম্পাদক নৃপেন চৌধুরী অবশ্য এখনই কোন মন্তব্য করতে নারাজ। তিনি বলেন, রাজ্য স্তরে নির্বাচনী কৌশল ঠিক হয়। তা নিয়ে জেলা স্তরে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার তাদের নেই। বাম কংগ্রেসে আবার ভোটের সমঝোতা হতে চলেছে- এই প্রসঙ্গে বিজেপির গলায় কটাক্ষের সুর। বিজেপি মুর্শিদাবাদ দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক তপন চন্দ্রের দাবি, কংগ্রেস, তৃনমূল, সিপিএম- একজোটে বিজেপির বিরোধিতা করছে। যদিও তৃনমূল কংগ্রেস এই জোট নিয়ে বিন্দুমাত্র বিচলিত নয়। মুর্শিদাবাদ জেলা তৃনমূল কংগ্রেস কোার্ডিনেটার অশোক দাসের কটাক্ষ, মুর্শিদাবাদ জেলায় বাম কংগ্রেস জোটকে সামনে রেখে বিজেপিকে সঙ্গে নিয়ে তৃনমূলের বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পরার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। তবে মুর্শিদাবাদে মহাজোট করেও তৃনমূলকে রোখা যাবে না।