২০১১’র পর তৃণমূলে বেনোজল, আবর্জনা ! মুর্শিদাবাদে অভিষেকের গলায় শুদ্ধিকরণের বার্তা ?

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুলিঃ তৃণমূলে ঢুকেছিল বেনোজল। বেনোজল দূর করতেই তৃণমূলের নব জোয়ার। মুর্শিদাবাদে এসে বললেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। বড়ঞার  কুলি ইন্দিরানগর মাঠের অধিবেশনে অভিষেক বলেন, “ জোয়ার যখন আসে নদীর পাড়ের  আবর্জনা ভাসিয়ে নিয়ে যায়। ২০১১ র পর অনেক বেনোজল, আবর্জনা আমাদের  দলে ঢুকেছিল। যাদের জন্য মানুষের কাছে জবাবদিহি আপনাদের করতে হয়।  সেই আবর্জনা যাতে জোয়ারে  ভাসিয়ে দিয়ে গঙ্গায় ফিরিয়ে দিতে  পারি সেজন্য তৃণমূলের  নবজোয়ার নিয়ে এসেছি”  । অভিষেকের এই বয়ান ঘিরেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলের আলোচনা। এতোদিন শুদ্ধিকরণের কথা শোনা যেত বাম নেতাদের মুখে। এবার কী নব জোয়ার দিয়ে দলের শুদ্ধিকরণের পথে হাঁটছে তৃণমূল ? কিন্তু বেনোজল ঠিক কারা ? সেই প্রশ্নও জোরদার হচ্ছে তৃণমূলের অন্দরে।

এদিন অভিষেক বলেন, দলের পঞ্চায়েত প্রধানদের নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। সেই কারণেই নবজোয়ার এনেছেন তিনি। এদিন কুলিতে ভোট গ্রহণ ঘিরেও ছড়ায় অশান্তি। যদিও  বুথের সভাপতিদের প্রলেপ দিয়েছেন  অভিষেক । অভিষেকের দাবি, মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পরের পদ বুথ সভাপতিদের। তাঁদের মতামত গুরুত্বপূর্ণ।  অভিষেকের প্রশ্নের  জবাবে এক তৃণমূল কর্মী জানান, ভোট দিতে পারেন নি তিনি। অভিষেক চিঠি লেখার নির্দেশ দিয়েছেন ওই তৃণমূল কর্মীকে।

পঞ্চায়েত হিংসা নিয়ে ইতিহাস টেনেছেন অভিষেক। অভিষেক বলেন,  “ সিপিএম ক্ষমতায় আসার পর গুন্ডামি, মাস্তানি করেছে। পঞ্চায়েতকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাস চলেছে।  পঞ্চায়েতকে কেন্দ্র করে লোক মারা যেত। সিপিএম সন্ত্রাসকে পঞ্চায়েতে মজ্জাগতভাবে ঢুকিয়েছে। ত্রিপুরা, কেরালা, বাংলায় পঞ্চায়েতকে কেন্দ্র করে অশান্তি হত। আমরা তার ইতি টানতে চাইছি” ।

গ্রাম পঞ্চায়েতে নজরদারির হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অভিষেক। অভিষেক বলেন,  “ ৩ মাস অন্তর প্রত্যকে গ্রাম পঞ্চায়েতের পর্যালোচনা আমি করবো। পঞ্চায়েতে জেতা মানে ৫ বছর নয়। ৩ মাসের লাইসেন্স। ৫ বছরে ২০ বার পর্যালোচনা হবে” । দলের অঞ্চল নেতাদের নিয়ে সমালোচনাও শোনা গিয়েছে অভিষেকের গলায়। অভিষেক বলেন,  জেলা থেকে ব্লক। ব্লক থেকে অঞ্চল  অঞ্চলে এসে সব আটকে যায় কিচ্ছু নামে না।অভিষেক সাগরদিঘির প্রসঙ্গ টেনে আক্রমণ করেন কংগ্রেসকেও। অভিষেক বলেন, বাইরন বিশ্বাসকে ভোট দিয়ে জেতানো আর খাল কেটে কুমির আনা এক। অভিষেকের দাবি, কংগ্রেস জিতলে পেট্রল, রান্নার গ্যাসের দাম কমে না। তৃণমূল জিতলে পেট্রল, ডিজেলের দাম কমবে।

তবে রাজনৈতিক মহলের প্রশ্ন কাদের বেনোজল বললেন অভিষেক ?