হারিয়ে যাওয়া পিঠের গন্ধে মাতোয়ারা খাদি মেলা Murshidabad Khadi Mela

বেদান্ত চট্টোপাধ্যায়ঃ গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঢেঁকী দেখেছেন? জানেন কিভাবে ঢেঁকীতে চাল গুড়ো করা হয়? আগের দিনে এই ঢেঁকীতে গুড়ো করা চাল দিয়েই তৈরি হতো পিঠে । বহরমপুর স্কোয়ার ফিল্ডে এবারের খাদি মেলা পুরনো দিনের মা ঠাকুমাদের হাতে তৈরি পিঠের স্বাদ গন্ধে মাতোয়ারা । গ্রামবাংলার হারিয়ে যাওয়া শিল্প ঐতিহ্যকে আবার ফিরিয়ে এনেছে জোনাল স্তরের খাদি মেলা। পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদের আয়োজনে বহরমপুর ব্যারাক স্কোয়ার ময়দানে জোনাল স্তরের খাদি মেলায় যেন উঠে এসেছে এক টুকরো গ্রাম বাংলা। শীতের দিনে বাঙালির ঐতিহ্য মাখা সেই পিঠে পুলির গন্ধ যেমন রয়েছে , রয়েছে তুলাইপাঞ্জি চাল, শিল্পের নানা পসরা।

বিভিন্ন স্বাদের পিঠের গন্ধে ম ম করছে এবছরের খাদি মেলা । খাদির বিভিন্ন জিনিসপত্রের পাশাপাশি রয়েছে গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া বিভিন্ন পিঠে পুলির স্টল । জেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায় বাংলার তথা মুর্শিদাবাদের হারিয়ে যাওয়া লোকশিল্প কে আবার তারা নতুন করে তুলে ধরতে চাইছেন ।

খাদি মেলায় পিঠের স্টল

এবছর খাদি মেলায় পিঠে পুলির স্টলে পাওয়া যাচ্ছে পাটিসাপটা ,ক্ষীর পাটিসাপটা, বাংলাদেশের সরা পিঠে, চুষী পিঠে, রসে ভেজা মালপোয়া ,সব্জি পিঠে, ধুকি পিঠে, দুধ পুলি । এছাড়াও বিভিন্ন রকমের খাওয়ারের দোকানও রয়েছে । পিঠে পুলির স্টলের বিশেষত্ব হল পিঠে শিল্পীরা মেলার মাঠেই ঢেঁকী তে চাল কুটছেন, গুড়ো করছেন । আর সেই চালের গুড়ো দিয়েই তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন স্বাদের পিঠে ।

পিঠে প্রস্তুতকারি শিল্পীরা এসেছেন নদীয়া জেলা থেকে । একদম গরম গরম পিঠে নিয়ে শিল্পীরা তৈরি আপনার পেটপুজোর জন্য । বহরমপুরের ভোজন রসিকরা ধন্যবাদ জানাচ্ছেন জেলা প্রশাসন কে , খাদি মেলায় এমন অভিনব আয়োজন করার জন্য ।২৯ শে জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে বহরমপুর জোনাল লেভেল খাদি মেলা , চলবে আগামী ১৩ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত । ১২৫ টি স্টল নিয়ে তৈরি সেজে উঠেছে মেলা । এ বছর ১০ টি জেলা খাদি মেলায় অংশগ্রহন করেছে ।