সাগরদীঘিতে যুবতীকে লোহার গরম রডের ছ্যাঁকা, পৈশাচিক নির্যাতন ! বিচার চাইছে পরিবার

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ সাগরদিঘীতে এক যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টা ও পৈশাচিক নির্যাতনের অভিযোগে প্রতিবেশী এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরিবার সূত্রে দাবি,  তিন যুবক মিলে ঐ যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে । ধর্ষণে বাঁধা পাওয়ায় চলে মারধর, নির্যাতন  ।   ওই যুবতীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে  গরম  লোহার রড দিয়ে ছ্যাঁকা  দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। এই ঘটনা জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকা জুড়ে। এই ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে এক  অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নির্যাতিতা যুবতীর পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে ২৫শে অক্টোবর ওই যুবতী প্রতিবেশি এক যুবতীর সাথে ছিলেন।  রাত ১১টা নাগাদ গ্রামেরই তিন যুবক দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকে । দুই যুবতীর  একসাথে থাকা নিয়েও প্রশ্ন তোলে তারা  । এরপরই ওই যুবতীর উপর নির্যাতন চালান হয় বলে অভিযোগ , এমনকি যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ।

 

এখানেই ক্ষান্ত থাকেনি ওই যুবকেরা, যুবতীর শরীরের বিভিন্ন অংশে লোহার রড পুড়িয়ে ছাকা দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। ওই যুবতীর শরীরের বিভিন্ন অংশ পুরে যায়।  বাঁধা দিতে গেলে তাঁর বান্ধবীকেও  মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। প্রায় ঘণ্টা খানেক ধরে এই নির্যাতন চলে বলে অভিযোগ । ঘটনার খবর পেয়ে দুদিন পরে তাকে পুলিশ নির্যাতিতাকে সাগরদীঘি হাসপাতালে ভর্তি করে।  এই ঘটনায় সাগরদীঘি থানায় দুজনের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুলিশ  রবিবার রাতে এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। সোমবার তাকে জঙ্গিপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়।