মনিরুলের কমিটি নিয়েই প্রশ্ন ! সামসেরগঞ্জে অঞ্চল সভাপতি নিয়ে কোন্দল তৃণমূলে

মাসুদ আলি, সামসেরগঞ্জঃ এক অঞ্চল। দুই সভাপতি।  সামসেরগঞ্জের কাঞ্চনতলায়  তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর লিস্টে  দুই অঞ্চল সভাপতির নাম । তা নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। অঞ্চল সভাপতি হিসেবে আলাদা, আলাদা নাম প্রকাশ করেছেন ফারাক্কার   বিধায়ক ও সামসেরগঞ্জ  পঞ্চায়েত সমিতির  সহ-সভাপতি । প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল।

রবিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে কাঞ্চনতলা অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সহ মোট ৩৫ জনের নাম ঘোষণা করেন সামসেরগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তাসিরুদ্দিন আহমেদ। জঙ্গিপুর সাংগঠনিক জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতিও তিনি।   সেই কমিটির সভাপতি হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয়  করা হয় ডাক্তার আব্দুল বারির । ওই সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন  সামসেরগঞ্জ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি মাস্টার সানাউল্লাহও । ওই লিস্টে সই রয়েছে সামসেরগঞ্জ ব্লক তৃণমূল সভাপতি সহিদুল ইসলামের।  কিন্তু সেই কমিটিকে কার্যত প্রত্যাখ্যান করে সোমবার সামসেরগঞ্জের কাঞ্চনতলা অঞ্চলের জন্য নতুন করে কমিটি ঘোষনা করলেন  ফরাক্কার বিধায়ক মনিরুল ইসলাম। সামসেরগঞ্জ ব্লক তৃণমূলের পূর্ব  ঘোষিত কমিটির মধ্যে শুধুমাত্র একজনকে রেখে বাকি অঞ্চল সভাপতি সহ নতুন করে ৩৫ জনের নাম ঘোষণা করেন ফরাক্কার বিধায়ক। সেই কমিটির সভাপতি করা হয় দেলোয়ার হোসেনকে। এই নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

ফরাক্কার বিধায়ক মনিরুল ইসলাম নতুন করে কাঞ্চনতলা অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের নাম ঘোষণা করতেই কার্যত তার বৈধতা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন  সামসেরগঞ্জের বিধায়ক আমিরুল ইসলামের অনুগামী হিসাবে পরিচিত  ডাক্তার আব্দুল বারী । ফরাক্কার বিধায়কের ঘোষিত কমিটি সম্পূর্ণ অবৈধ বলেই দাবি করেন তিনি। যদিও ডাক্তার আব্দুল বারীর বক্তব্যকে উড়িয়ে দিয়ে পাল্টা সামসেরগঞ্জ ব্লক তৃণমূলের ঘোষিত কমিটিকেই অবৈধভাবে বলে দাবি করেছেন বিধায়ক মনিরুল ইসলামের ঘোষিত অঞ্চল সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।  অঞ্চল সভাপতি কে ? তা নিয়ে  ধন্দে তৃণমূল কর্মীরা। পঞ্চায়েত ভোটের আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের দুই গোষ্ঠীর দুই অঞ্চল সভাপতি ও কমিটি ঘোষণা নিয়ে ফের একবার গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে এলো সামসেরগঞ্জে।