ভগবানগোলার ভাঙ্গনপাড়ায় জলবন্দি মানুষজন

নিজস্ব প্রতিবেদন: টানা কয়েকদিনের ভারী বৃষ্টি এবং আশেপাশের নর্দমার নোংরা জল জমেছে এলাকায়। দিনের পর দিন নয়, মাসের পর মাস – এই দুরাবস্থায় স্থানীয়রা। নোংরা জমা জল উপচে ঢুকেছে বাড়ির অন্দরে। মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলার ৩ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীনে রেল কলোনির ভাঙ্গনপাড়া এলাকা জলমগ্ন। জলবন্দী হয়ে দিন কাটছে এলাকাবাসীদের। গৃহবন্দি হয়ে রয়েছেন প্রায় ৩৫ টি পরিবারের শতাধিক মানুষ। পানীয় জলের কল জলের তলায়, যাতায়াতের রাস্তায় জমেছে জল। বিগত কয়েক মাস ধরে বৃষ্টিতে জমছে জল। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে দিন কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন এলাকার মানুষজন। জল নিকাশির কোন ব্যবস্থা না থাকায় ক্ষোভ জন্মেছে স্থানীয়দের মনে।

অভিযোগ, স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত ও ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে পরিস্থিতি সামাল দিতে কোনো ব্যবস্থাই নেওয়া হচ্ছে না।

এভাবেই জমে থাকা নোংরা জল পায়ে ঠেলেই যাতায়াত করছেন আঁট থেকে আশি। জরুরি কাজে বা চিকিৎসা জনিত কারনে রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যেতেও বিপাকে পরছেন অনেকেই। জমা জলে বাড়ছে- মশা মাছির উপদ্রব, থাকছে সাপের ভয়। কেন জল নিকাশির ক্ষেত্রে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না, জানতে চান স্থানীয়রা। পাকা রাস্তার দাবি উঠছে।

এই বিষয়ে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া না গেলেও পঞ্চায়েত সদস্য অবশ্য বলছেন, পঞ্চায়েত প্রধান এবং ব্লক প্রশাসনের তরফে পরিদর্শনের পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কবে এই করুন অবস্থা থেকে রেলকলোনির ভাঙ্গনপাড়ার বাসিন্দারা মুক্তি পাবেন-? কবে জলবন্দী দশা কাটিয়ে জীবনের মূল ছন্দে ফিরতে পারবেন- সে দিকেই তাকিয়ে অসংখ্য পরিবার।