বিসর্জনে ডিজে দাপট, মদ্যপান ! দুর্ঘটনায় সরকারকে দুষলেন অধীর

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ মুর্শিদাবাদে প্রতিমা বিসর্জনে মৃত্যু হয়েছে দুই ব্যক্তির। মালবাজারে  বিসর্জনে ঘটেছে বড়  বিপর্যয়। মাল নদীতে হড়পা বানে মৃত্যু হয়েছে  ৮ জনের। মালবাজারের ঘটনায় প্রশাসনিক গাফিলতির দিকে আঙুল তুলেছে বিরোধীরা। বিসর্জনে মৃত্যু নিয়ে সরকার, তৃণমূল কংগ্রেসকেই নিশানা করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি, বহরমপুরের সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী।  মুর্শিদাবাদে ২ জনের মৃত্যু নিয়ে অধীর বলেন, এই মৃত্যু এড়ানো যেত। উদ্যোক্তারা, নৌকা চালকরা, প্রশাসন সকলের মধ্যে কোঅর্ডিনেশন থাকলে এই মৃত্যু ঘটত না।

অধীরের দাবি, বাংলায় চোলাই মদের রমরমা হয়েছে। চোলাই মদের দৌলতে অশান্তি, মারামারি বাড়ছে। গলিতে গলিতে মদের দোকান খোলায় সুস্থ সংস্কৃতি ব্যাহত হচ্ছে।

অধীর চৌধুরী বলেন, দুর্গাপুজোয় ভিড় হয় ।  বাইচ হয়, নদীর ধারে জনসমাগম হয়। এটা নিয়ন্ত্রণ করাটা প্রশাসনিক কাজের মধ্যে পরে । কাল থেকে দুর্ঘটনার খবর আসছে। নৌকায় করে ঠাকুর ভাসানে ডিজে;  তার সাথে দিদির দয়ায় মদ্যপান, তার সাথে সর্বত্র বিশৃংখলা। যেখানে নিয়ন্ত্রণের গল্প নেই, সংযম নেই। তার পরিণামে একের পর মৃত্যুর ঘটনা পুজোর মধ্যে সামনে আসছে। অধীরের দাবি, রাজ্যে একটি অংশের মানুষের  আইন শৃংখলা মেনে চলার মানসিকতা হারিয়ে যাচ্ছে।

অধীর বলেন, রাজ্যে এখন  পিছনে সরকারি দল থাকলে যা খুশি করা  যাচ্ছে। মদ, উশৃংখলার ইফেক্ট। অধীর বলেন, এখানে মানুষের জীবনের মূল্য নেই। হড়কা বানে, বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হচ্ছে। মৃত্যু এখানে ছেলেখেলা। স্বাস্থ্য নিয়ে, জীবন নিয়ে, শিক্ষা নিয়ে ছেলেখেলা হয়।