প্রণব বাবুর প্রয়াণে শোকের ছায়া সব মহলে

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ একদিকে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরন এবং অস্ত্রপচার, তাঁর উপর করোনা সংক্রমণ- জোড়া ধাক্কা আর সামলে উঠতে পারলেন না তিনি। দিল্লির সেনা হাসপাতালে হল নক্ষত্র পতন। স্বাধীনতার পর সর্বভারতীয় রাজনীতিতে সফলতম বাঙালি এবং দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রনব মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকের ছায়া সব মহলে। গোটা দেশের মানুষের প্রার্থনা, চিকিৎসকদের আপ্রান চেষ্টা সত্ত্বেও শেষ রক্ষা হল না। রাজনীতিবিদ থেকে শিক্ষাবিদ- প্রনব বাবুর প্রয়াণে ভারাক্রান্ত সব মহল। ভারতীয় রাজনীতির চাণক্যের প্রয়াণে আজ তারা অভিভাবকহীন, বললেন মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেস মুখপাত্র জয়ন্ত দাস।

রাজনীতির আঙিনায় মতাদর্শগত পার্থক্য থাকলেও ভারতের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন প্রনব বাবু, ছিলেন দেশের ক্রাইসিস প্লেয়ার- তাঁর মৃত্যু এক অপূরণীয় ক্ষতি, প্রতিক্রিয়া সিপিআইএম মুর্শিদাবাদ জেলা সম্পাদক নৃপেন চৌধুরীর।

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এবং জঙ্গিপুরের প্রাক্তন সাংসদ প্রনব মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন সিপিআইএম নেতা সোমনাথ সিংহ রায়।

শোক প্রকাশ করে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলা তৃনমূলের অন্যতম কো অরডিনেতটর অশোক দাস।

শুধু রাজনীতিবিদ নন, প্রনব বাবু প্রত্যেকের কাছে, প্রত্যেক ক্ষেত্রের মানুষের কাছে ছিলেন অনুস্মরণীয়, শ্রদ্ধেয়। প্রনব মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকের ছায়া শিক্ষা মহলেও। ভারতবর্ষের রাজনীতিতে প্রনব বাবুর অবদান ভোলার নয়। ভারতের রাজনীতির একটি স্বর্ণযুগ দলে গেল বলেই অভিমত, বিশিষ্ট শিক্ষক ডঃ জয়ন্ত দত্তের।

বহরমপুরে কৃষ্ণনাথ কলেজে এসেছিলেন প্রনব বাবু। রাজা কৃষ্ণনাথের মূর্তি উদ্বোধন থেকে কলেজের উন্নয়নে নানা ভাবেই সহায়তা করেছেন, বহু বই দান করেছেন, যা আজও সজন্তে রক্ষিত রয়েছেন, স্মৃতি চারণায় কৃষ্ণনাথ কলেজের প্রিন্সিপ্যাল ডঃ সুজাতা বন্দ্যোপাধ্যায়।