নয়া কৃষি বিল নিয়ে কতটা ওয়াকিবহাল কৃষক সমাজ!

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত রবিবার রাজ্যসভায় পাস হয়ে গিয়েছে বিতর্কিত দুটি নতুন কৃষি বিল। এই বিলকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকরা ইতিমধ্যেই বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেছেন। প্রশ্ন হচ্ছে কি এই কৃষি বিল? যাকে নিয়ে এতো বিরোধিতা? এবং কেন এই বিল নিয়ে অসন্তুষ্ট কৃষকরা। নয়া কৃষি বিল নিয়ে কতটা ওয়াকিবহাল মুর্শিদাবাদ জেলার কৃষক সমাজ? কৃষকদের প্রতিক্রিয়া জানতে সরাসরি সামসেরগঞ্জের বলবলপাড়ায় চাষের জমিতে পৌছলাম আমরা। সামসেরগঞ্জ- যেখানে একদিকে শ্রমজীবী মানুষের বাস অন্যদিকে কৃষিকাজও অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পেশা। ধান থেকে মরশুমি শাক সব্জি চাষবাস করে দু পয়সা রোজগারের চেষ্টা কৃষকদের। বিঘা বিঘা জমিতে পরিশ্রম করে ফসল ফলান এই কৃষকরাই। এই এলাকার কৃষকরা নয়া কৃষি বিল নিয়ে কি ভাবছেন?

দুটি কৃষি বিল- একটি- কৃষিপণ্য লেনদেন ও বানিজ্য উন্নয়ন এবং অপরটি কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত রাখতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি- । কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি, এই বিলগুলির ফলে কৃষকদের রোজগার বাড়বে এবং কৃষিক্ষেত্রের উন্নতি হবে। এর ফলে ২০২২ সালের মধ্যেই কৃষকদের উপার্জন দ্বিগুণ হবে। এই বিলগুলি সরকার নিয়ন্ত্রিত বাজারের নিয়ন্ত্রন থেকে কৃষকদের মুক্ত করবে এবং কৃষকরা তাদের কৃষি পণ্যের জন্য আরও বেশি দাম পাবেন। যদিও কৃষকরা তাদের উৎপাদনের জন্য ন্যুন্যতম সহায়তা মুল্য পাওয়ার বিষয়ে শংকিত। এই বিল পাস হওয়ার ফলে বাজার থেকে সরকারি নিয়ন্ত্রন সরে যাবে, সরকার ধীরে ধীরে ন্যুন্যতম মুল্যে ফসল কেনা বন্ধ করে দেবে বলেও আশংকা, ফলে কৃষকদের পুজিপতিদের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে বলেই মনে করছেন একাংশের কৃষক।

পাশাপাশি কৃষি বানিজ্য ও বড় খুচরো ব্যবসায়ীরা কৃষকদের উপরে আধিপত্য বিস্তার করতে পারে এই বিষয়েও উদ্বেগ রয়েছে।

কৃষি বিল নিয়ে আগামি দিনে কৃষকদের জন্য কতটা ফলপ্রসূ হয়- সেটাই এখন দেখার।