নবগ্রামে পিটিয়ে খুনে অভিযুক্ত তৃণমূল। দলের যোগ অস্বীকার বিধায়কের

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ  মুর্শিদাবাদের নবগ্রামে এক  যুবককে পিটিয়ে খুনের ঘটনায় অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেস  কর্মীদের দিকে । রবিবার বিকেলে সামান্য হর্ন বাজানোকে কেন্দ্র করে বচসা হয় নবগ্রাম কিষাণ মান্ডির কাছে ।  বচসার জেরেই পলসন্ডায় ১৯ বছরের তরজা এক যুবককে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল নবগ্রামে। মৃত তারক ঘোষ নবগ্রামের জারুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা ।  রমানন্দপুর গ্রাম থেকে ক্রিকেট খেলা শেষে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি।

৩১ জানুয়ারি  নবগ্রামে বিল বসিয়ায় গুলি চলে । তার জেরে মৃত্যু হয় এক তৃণমূল কর্মীর। সেই ঘটনায় বিরোধীদের নিশানা করে রবিবার মৌন  মিছিল করে তৃণমূল। সেই মিছিল থেকে ফিরছিলেন তৃণমূল কর্মীরা। কিষাণ মান্ডির সামনে ছিল তৃণমূল কর্মীদের গাড়ি । সেখান দিয়েই বাইকে ফিরছিলে জারুলিয়ার যুবকরা। কিষাণ মান্ডির সামনে  হর্ন দেওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা হয়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী, বিএসএফ জওয়ান  ত্রিদিপ ঘোষ বলেন, ”  ধাক্কাধাক্কি হওয়ার পর আমি ওখান থেকে আমাদের ছেলে গুলোকে নিয়ে চলে এলাম । এরপর পলসন্ডা মোড়ে সকলে দাঁড়িয়ে গল্প করার সময় হঠাৎ  ওরা দল বেঁধে পিছন থেকে আমাদের উপর হামলা চালায় । আমি বাঁচাতে গিয়ে আমার মাথাতেও চোট লাগে । চেহারা দেখতে হয়তো চিনতে পারবো তবে ওদের বাড়ি কোথায় জানি না। ওরা নবগ্রামের দিক থেকে আসছিল সবাই বলছিল তৃণমূলের পার্টির লোক হতে পারে” ।
মৃতের মামা পলাশ ঘোষও ছিলেন ঘটনাস্থলে। তিনি বলেন, ” তৃণমূল, ওরা বারে বারে একথা বলছিল, আর মারার সময়েও বলেছে । টিএমসির লোকে মেরেছে।  আমাকে আইসি সিসিটিভি ফুটেজ দেখালো আমি সঙ্গে সঙ্গে বলে দিয়েছি তিনজন ছিল তারমধ্যে একজনকে ধরেছে, বাকি দুজন নেই। টিএমসির লোকেই মেরেছে”।

ঘটনায় সোমবার নবগ্রাম থানায়   দায়ের হয়েছে  লিখিত অভিযোগ  । পিটিয়ে খুনের ঘটনায় তৃণমূলকে নিশানা করেছে কংগ্রেসও।  যদিও ঘটনার সাথে  তৃণমূল কংগ্রেসের  যোগ অস্বীকার করেছেন নবগ্রামের বিধায়ক, তৃণমূলের জঙ্গিপুর সাংগঠনিক জেলার চেয়ারম্যান  কানাই মন্ডল। কানাই মণ্ডল বলেন, ” মৌন মিছিল তো নবগ্রামে হয়েছে, আর রাস্তায় তো মারামারি হয়েছে পলসন্ডা মোড়ে। মিছিল তো নবগ্রামে হয়েছে, এসব অবান্তর কথা, এসব কংগ্রেসের অপপ্রচার, বিরোধীরা অপপ্রচার করছে”। বিধায়কের আশ্বাস, শাস্তি পাবে অভিযুক্তরা।