দুই যুবকের কাছে ৪০০ কেজি গাঁজা ! বেগুনের গাড়িতে তল্লাশি করতেই চক্ষু চড়কগাছ

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ গাড়িতে ভর্তি  বেগুন । কিন্তু   গাড়ির চালকের কথায় অসঙ্গতি।  ভালো করে তল্লাশি চালাতেই চক্ষু চড়কগাছ হল পুলিশের। তল্লাশির  সময় গাড়ি থেকে উদ্ধার হল  ৮০ প্যাকেট গাঁজা, যার ওজন ৪০০ কিলো ।

আবার বড়সড় সাফল্য পেল  জঙ্গিপুর পুলিশ জেলার রঘুনাগঞ্জ থানার। পাচারের আগেই প্রচুর পরিমাণে  গাঁজা সহ পুলিশের জালে দুই পাচারকারী । উদ্ধার হওয়া গাঁজা  উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। বৃহস্পতিবার দুজনকে পুলিশি হেফাজত চেয়ে জঙ্গিপুর কোর্টে পাঠায় পুলিশ। এদিন রঘুনাথগঞ্জ থানার আইসি প্রার্থ ঘোষ, জঙ্গিপুরের এসডিপিও দীপক তালুকদারকে সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে জঙ্গিপুর পুলিশ জেলার পুলিশ উপার ডঃ ভোলানাথ পাণ্ডে সাংবাদিক বৈঠক করে জানান,  গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বুধবার বিকেলে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের রঘুনাথগঞ্জের অমরপুর এমডিআই বাসস্টপের কাছে তল্লাশি চালানোর সময় একটি পিকআপ ভ্যান আটকানো হয়।

 

গাড়িতে বেগুন ভর্তি ছিল ।  গাড়ির চালকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় অসংগতি  মেলায় ভালো করে তল্লাশির সময় গাড়ি থেকে উদ্ধার হয় ৮০ প্যাকেট গাঁজা, যার ওজন ৪০০ কিলো । এই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় রাহুল আলী ও বিশ্বজিত দাসকে । রাহুল আলী কোচবিহারের তুফানগঞ্জের এবং বিশ্বজিত দাস কোতয়ালি কোচবিহারের বাসিন্দা।

এই গাঁজা পাচারের উদ্যেশ্যে উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। এই ঘটনায় সাথে আর কারা যুক্ত রয়েছে তা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ধৃতদের এদিন ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানিয়ে জঙ্গিপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়। উদ্ধার হওয়া গাজার বাজার মূল্য ৪৫ থেকে ৫০ লক্ষ টাকা বলে অনুমান পুলিশের।