তদন্ত জারি রানীনগরে ধৃতদের এলাকায়

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ মুর্শিদাবাদে ক্রমশই প্রবল হচ্ছে আল কায়দা জঙ্গি যোগ। তদন্তকারীদের জেরায় উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। রবিবার রাতেও রানিনগরের কালীনগর মধ্যপাড়ায় ধৃত আবু সুফিয়ানের বাড়িতে স্থানীয় প্রশাসনের তরফে জিজ্ঞসাবাদের জন্য প্রতিনিধিরা যান বলেই জানা যাচ্ছে। চার ছেলে, স্ত্রী নিয়ে পেশায় দর্জি আবু সুফিয়ানের সংসার। কিন্তু কিভাবে জঙ্গি সংগঠনের সাথে যোগ? যা নিয়ে রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে। কিন্তু ধৃত আবু সুফিয়ানের স্ত্রীর দাবি, তার স্বামী নির্দোষ, চক্রান্ত করে ফাঁসানো হচ্ছে তার স্বামীকে।

কেরালা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মুর্শিদ হাসানকে। পেশায় রাজমিস্ত্রির কাজ করত মুর্শিদ। রানিনগরে দুঃস্থ পরিবারে উৎকণ্ঠার শেষ নেই। পাড়া প্রতিবেশীরাও হতবাক। প্রতিবেশীরা বলছেন, বিগত এক বছর আগে মানসিক সমস্যা দেখা যায় মুর্শিদ হাসানের। চিকিৎসার পর সুস্থ হয়। এলাকায় ভালো ছেলে বলেই পরিচিত ছিল।

ধৃত মুর্শিদ হাসেনের মা বলছেন, তিন ছেলে তার। অত্যন্ত দুঃস্থ পরিবার। দু পয়সা রোজগারের জন্য ছেলেকে কেরলে পাঠান।

তদন্তকারীরা তদন্ত তল্লাশি চলাচ্ছে সর্বত্র। পরবর্তীতে আর কি কি তথ্য উঠে আসে? সেটাই এখন দেখার।