ডোমকলে গুলি কাণ্ডে বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তাপ

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজনৈতিক উত্তাপ হোক কিংবা হিংসার ঘটনায়- কোন না কোন কারনে বরাবরই ডোমকলের আবহাওয়া থাকে বেশ গরম। গত রবিবার আবারও প্রকাশ্য রাস্তায় গুলি চালানোর ঘটনার সাক্ষী থাকল ডোমকল। ডোমকলের রঘুনাথপুর মোড়ে রবিবারের এই ঘটনার পর মুর্শিদাবাদ জেলার রাজনৈতিক মহলও সরগরম। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন স্থানীয় তৃনমূল বুথ সভাপতির ভাই আনোয়ার সাইদ ওরফে জনি এবং অভিযোগ- যিনি প্রকাশ্যে গুলি করেছেন তিনি তৃনমূলেরই ওয়ার্ড সভাপতি আসাদুল ইসলাম। আর এখানেই প্রশ্ন উঠেছে- তাহলে কি গোষ্ঠী কোন্দলের জেরেই ঘটল এই ঘটনা? হিংসা নাকি প্রতিহিংসার জের? ইতিমধ্যেই গুলি কাণ্ডে গ্রেপ্তার হয়েছেন স্থানীয় তৃনমূল নেতা এবং ওয়ার্ড সভাপতি আসাদুল ইসলাম সহ তিন অভিযুক্ত। এও শোনা যাচ্ছে, ডোমকল পৌরসভার চেয়ারম্যান জাফিকুল ইসলামের অনুগামী ছিলেন অভিযুক্ত আসাদুল ইসলাম। যদিও গোটা বিষয়টি নিয়ে গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের প্রসঙ্গ উড়িয়ে চেয়ারম্যান অবশ্য বলেন, স্রেফ দুই পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোল, পারিবারিক ঘটনা, দল কিছু জানে না।

পারিবারিক গণ্ডগোল নাকি গোষ্ঠী কোন্দল? যা নিয়ে সমালোচনায় সরব কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতার কটাক্ষ, শাক দিয়ে মাছ ঢেকে লাভ নেই। তৃনমূল দলের আভ্যন্তরীণ লড়াইয়ের ফল এই গুলি চালনা।

ব্যুরো রিপোর্ট, মধ্যবঙ্গ নিউজ

ডোমকলে গুলি কাণ্ডে বাড়ছে রাজনৈতিক উত্তাপ from IMAGIN CTv on Vimeo.