টিউশন পড়াতে ডেকে ছাত্রীর সাথে জঘন্য ঘটনা। কান্দিতে ২০ বছরের জেল গৃহশিক্ষকের

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ  নাবালিকাকে ছাত্রীকে বাড়িতে প্রাইভেট  টিউশন পড়ানোর সময় অশালীন ভিডিও দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগের ভিত্তিতে  এক গৃহশিক্ষককে ২০ বছরের জেল হেফাজতের সাজা ঘোষণা করল   কান্দির মহকুমা আদালতের স্পেশাল কোর্ট।  ৫ই জানুয়ারি ২০২০ সালে কান্দি থানায় নির্যাতিতা ছাত্রীর মা অভিযোগ করেন কান্দির হাজারপাড়া নবগ্রাম এলাকার বাসিন্দা ওই  গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে।

ছাত্রীর মায়ের অভিযোগ,    বাড়িতে সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রীকে টিউশন পড়ানোর  সময় মাঝে মধ্যে অশালীন ভিডিও দেখিয়ে ব্ল্যাকমেল করতেন ওই শিক্ষক। দিনের পর দিন করা হয়  ধর্ষণও।   এই অভিযোগের ভিত্তিতে ২০২০ সালে ১৮ই ফেব্রয়ারী অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়ার পর জেলা হেফাজতে ছিলেন ওই অভিযুক্ত। একাধিকবার জামিনের আবেদন করলেও জামিন পান নি ওই গৃহশিক্ষক।

গত ২৩শে নভেম্বর কান্দি স্পেশাল কোর্টের বিচারপতি সোমা মজুমদার অভিযুক্তকে দোষী  সাব্যস্ত  করেন । ১৩ জনের সাক্ষী  গ্রহন করা হয়। বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত শিক্ষককে  ২০ বছর সশ্রম কারাদন্ডের নির্দেশ দেয় আদালত।  ৫০ হাজার টাকা জরিমানার নির্দেশও দেওয়া হয়।   অনাদায়ে আরও চার বছরের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত ।