গঙ্গা নদীতে পিকনিকঃ মন্ত্রীর ভাঙন পরিদর্শন নিয়ে খোঁচা অধীরের। ভাঙন রাজনীতি চলছেই

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ ঘুম উড়েছে সামসেরগঞ্জের নদীপাড়ের মানুষের। তার মাঝেই জমে উঠেছে ‘ভাঙন’ রাজনীতি ।  মঙ্গলবার সামশেরগঞ্জে ভাঙন রোধের দাবিতে সভা  করেন অধীর। তার আগে পায়ে হেঁটে  ভাঙন  কবলিত এলাকা ঘুরে দেখলেন বহরমপুরের সাংসদ ও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। সাথে ছিলেন মালদা দক্ষিণের সাংসদ সাংসদ আবু হাসেন খান চৌধুরী সহ কংগ্রেস নেতারা  ।

এই মাসেই  ১১ই নভেম্বর সামসেরগঞ্জে ভাঙন পরিদর্শনে এসেছিলেন সেচমন্ত্রী পার্থ ভৌমিক, সেচ প্রতিমন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ও সেচ দপ্তরের উচ্চপদস্থ আধিকারিরা। ছিলেন জঙ্গিপুরের সাংসদ খলিলুর রহমান, স্থানীয় বিধায়ক আমিনুল ইসলাম। যদিও সেই পরিদর্শনকে ‘পিকনিক’ বলে আক্রমণ করেছেন অধীর ।

অধীরের দাবি, রাজ্য সরকার কাজ  করে থাকলে  নৌকায় নৌকায় না ঘুরে এলাকার মানুষের সাথে আলোচনা করা উচিত ছিল। অধীর মন্ত্রীর ভাঙন পরিদর্শনকে, “গঙ্গা নদীতে পিকনিক” বলেও কটাক্ষ করছেন। অধীর বলেন, “এলাকার মানুষ যে তিমিরে ছিল সেই তিমিরেই আছে। কাজ কোথায় চলছে জানা নেই। মানুষ আলোচনা করতে চাইছে। আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে অনুরোধ করছি, ভাঙন কবলিত এলাকায় আসুন”।

ভাঙন পরিদর্শনে সাংবাদিকদের পার্থ ভৌমিক   বলেছিলেন , ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে আমরা ভাঙন এলাকা পরিদর্শনে এসেছি। ইতিমধ্যেই ভাঙন রোধে কাজ চলছে। আমরা পরিদর্শন করলাম। এলাকার মানুষের দুর্বিসহ অবস্থার কথা মুখ্যমন্ত্রীকে জানাব। আগামী দিনে ভাঙন রোধে যাবতীয় ব্যবস্থা রাজ্য সরকার নেবে। তবে এই ভাঙন রুখতে কেন্দ্রের সহযোগিতা প্রয়োজন’’ ।

অধীর চৌধুরীর এদিনের মন্তব্য নিয়েও শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা।

(বিস্তারিত আসছে)