অভিযোগে নাম নেই । তৃণমূল নেতা খুনে ধৃত ইসরাফিলের পুলিশি হেফাজত

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ  নওদায় নদীয়ার তৃণমূল নেতা খুনে ধৃতের ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতে নির্দেশ দিল  জেলা সিজিএম কোর্ট  । গত রাতে নদিয়ার থানারপাড়া থানা এলাকা থেকে এক জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ইসরাফিল সেখ ওরফে খাতিব সেখকে নদীয়ার টুকলা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় বলে পুলিশ সুত্রে খবর। শনিবার তাকে বহরমপুরে জেলা আদালতে তোলা হলে সিজিএম কোর্টের ভারপ্রাপ্ত বিচারক অর্ঘ আচার্য  ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

সুত্রের খবর,  পরিবারের পক্ষ থেকে যে অভিযোগ করা হয়েছিল ১০ জনের নামে সেখানে নাম ছিল না এই ইসরাফিল সেখের।  তবে মৃতের দেহরক্ষীর করা অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে করা এফআইআর এর ভিত্তিতে তদন্তে নেমে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে । এদিন পুলিশ ধৃতকে ১০ দিনের হেফাজতের আবেদন জানান হয় যদিও বিচারক ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

শুক্রবার   নওদার তৃণমূল কংগ্রেস ব্লক সভাপতি নওদার সফিউজ্জামান সেখ ওরফে হাবিব মাস্টার ও নদিয়ার জেলা পরিষদ সদস্য টিনা ভৌমিকের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে লিখিত অভিযোগ। এই দুই তৃণমূল নেতা সহ মোট দশ জনের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃত তৃণমূল নেতা মতিরুল বিশ্বাসের স্ত্রী  রিনা খাতুন বিশ্বাস ।  দুই নেতা সহ দশজনের বিরুদ্ধে নওদা থানায় দায়ের হয়েছে লিখিত অভিযোগ।

দলেরই একাংশের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযগ করেছেন তেহট্টের  তৃণমূল বিধায়ক তাপস সাহা। বিধায়ক  বলেন, “পুর্বপরিকল্পিতভাবে ছক করে খুন করা হয়েছে”। বিধায়ক সরাসরি অভিযোগ করেছেন Nawda  তৃণমূল কংগ্রেস ব্লক সভাপতি নওদার সফিউজ্জামান সেখ ওরফে হাবিব মাস্টার ও নদিয়ার জেলা পরিষদ সদস্য টিনা ভৌমিকের বিরুদ্ধে ।  ঘটনায় অস্বস্তিতে তৃণমূল শিবির।